বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

নতুন বিপদের সম্মুখীন হ’তে চলেছে বিশ্ববাসী জ্যোতির্বিজ্ঞানীদের অভিমত


কাকলি চ্যাটার্জি:চিন্তন নিউজ:২৬শে মে:- কোভিড১৯ এর পাশাপাশি আর এক বিপদের সম্মুখীন হতে চলেছে বিশ্ববাসী। প্রতি ৪০০ বছর অন্তর শুরু হয় ‘সৌর সর্বনিম্ন’। যেটা এই ২০২০ তে শুরু হয়েছে তা এরই অংশ। এর প্রভাব স্থায়ী হবে আগামী ৩০ বছর। সূর্য এই সময় নিদ্রা যাবে। বিশ্ববাসী এক ভয়ংকর পরিস্থিতির কবলে পড়বে বলে জ্যোতির্বিজ্ঞানীদের অভিমত। সূর্যের তাপমাত্রা তুলনামূলক কম থাকবে এই সময়। সারা বছরই মিলবে শীতের আমেজ।পৃথিবীর গড় তাপমাত্রা দুই ডিগ্ৰী সেলসিয়াস মত কমে যাবে। ঘুমন্ত আগ্নেয়গিরিগুলো আবার জেগে উঠতে পারে, বজ্রপাত, ভূমিকম্প বাড়বে। এটা বোধহয় আমরা এখনই কিছুটা অনুভব করতে পারছি। শীতপ্রধান দেশগুলোতে বাড়বে তুষারপাত, গ্ৰীষ্মেও তাপমাত্রা কমে গিয়ে তুষারপাতের সম্ভাবনা থাকছে।

এইসময় পৃথিবীর চৌম্বক ক্ষেত্র দুর্বল হয়ে পড়বে, ফলে বিঘ্নিত হতে পারে নেটওয়ার্ক। সূর্যের চৌম্বক ক্ষেত্র দুর্বল হলে মহাজাগতিক রশ্মির প্রবেশ সহজ হবে, মেরুঅঞ্চল দিয়ে এই রশ্মি প্রবেশ করে বলে সেখানে বেশি প্রভাব পড়বে। মহাকাশযাত্রীরাও অসুবিধার সম্মুখীন হবেন বলে ওয়াশিংটন পোস্ট জানিয়েছে।

এর আগে ১৭৯০–১৮৩০ সময়কালে চলেছিল ‘সৌর সর্বনিম্ন’। এইসময় দেখা দিয়েছিল খাদ্যসংকট, বারবার ঘটেছিল অগ্ন‍্যুৎপাত। ১৮১৬ সালে পৃথিবীর কোথাও গরম অনুভূত হয়নি। আমেরিকাতে এই বছর গ্ৰীষ্মে তুষারপাত হয়েছিল।

আগামী ৩০ বছর হয়তো আমরা অনেক অজানা, অচেনা ঘটনার সাক্ষী হতে চলেছি। বিস্ময়কর কিংবা ভয়াবহ ঘটনাও অপেক্ষা করে আছে কী না কে বলতে পারে!

তথ্যসূত্র–https://www.janadarpan.in/2020/05/18


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।