জেলা রাজ্য

মধ্যমগ্রাম ১০নং ওয়ার্ডে ডিওয়াইএফ‌আই এর উদ্যোগে প্রথম দফার শুভেচ্ছা কর্মসূচী,


চিন্তন নিউজ:নিজস্ব সংবাদদাতা,মধ্যমগ্রাম:৩০শে আগস্ট,২০২০:- করোণাকে পরাজিত করে সুস্থ হয়ে ওঠা ব্যক্তিদের শারীরিক ও মানসিক দৃঢ়তা ও লড়াইকে কুর্নিশ জানিয়ে আজ সারাদিন ব্যাপী ওয়ার্ডে সেই সকল ব্যক্তিদের এবং তাদের পরিবারকে শুভেচ্ছা জানানো হল।

প্রসঙ্গত ১০ নং ওয়ার্ডে ভয়াবহ করোণা পরিস্থিতিতে মানুষকে বিশেষ সাহায্য করার জন্য সিপিআইএম এর পক্ষ থেকে বিশেষ হেল্পলাইন চালু করা হয়, জরুরী পরিষেবা এবং করোনা আক্রান্তদের সব রকম সাহায্যের জন্য এই হেল্পলাইন এলাকায় আলোড়ন তৈরী করে। সরকারি পরিষেবা থেকে মানুষ যখন বঞ্চিত, তখন বিকল্প সাহায্যের জন্য এই হেল্পলাইন এর গ্রহনযোগ্যতা বিরোধীদের উপর চাপ তৈরী করে।

মূলত ডিওয়াইএফআই নেতা সুদীপ্ত চন্দের উদ্যোগে ইতিমধ্যে এই এলাকায় ‘শহীদ ক্ষুদিরাম বসু’ মেডিকেল ব্যাঙ্ক চালু হয়, সেখানে বিশিষ্ট চিকিৎসকরা বিনা পয়সায় মানুষের চিকিৎসা করেন। এলাকার মানুষকে কাছে টেনে এমন সব উদ্যোগ গোটা মধ্যমগ্রাম সহ গোটা জেলার বাম আন্দোলনকে বাড়তি অক্সিজেন যোগাচ্ছে। এই ওয়ার্ডে মানুষের মুখে মুখে বাম ছাত্র যুব কর্মীদের কথা শোনা যাচ্ছে। আজকের কর্মসূচী সম্পর্কে সুদীপ্ত চন্দ বলেন, এলাকার করোণা আক্রান্ত কাউন্সিলর শাসক দলের সরকারি সুবিধা নিয়ে হাসপাতালে বিশেষ চিকিৎসা পরিষেবা পেয়েছেন, কিন্তু এলাকার বাকি সব মানুষ তাদের নিজেদের প্রচেষ্টায় এবং বামপন্থী কর্মীদের সাহায্যে হাসপাতাল বা ডাক্তার পরিষেবা জোগাড় করেছেন । এবং ‌ দেখা গেছে, কমিশনার শাসক দলের নেতা হওয়ায় তিনি সুস্থ হলে তাকে নিয়ে ঢাকঢোল পিটিয়ে মিছিল করে বাড়ি ফিরিয়ে আনা হয়েছে তৃণমূলের পক্ষ থেকে ।

কিন্তু এলাকার বাকি করোণা আক্রান্ত সাধারণ মানুষ ও তাঁদের পরিবারের মানসিক ও শারীরিক লড়াইতে বামপন্থীরাই পাশে ছিলো। তাই তাঁদের এই লড়াইকে কুর্নিশ জানাতেই এই অভিনব কর্মসূচি নেওয়া হয় এলাকার যুব সংগঠনের পক্ষ থেকে এবং করোণা আক্রান্তকে ঘৃণা না করে তাঁদের ও তাঁদের পরিবারের পাশে দাঁড়ানোর বার্তা দেওয়া হল এই কর্মসূচীর মাধ্যমে। “তাদের পরিবারের সকলকে শুভেচ্ছা জানানো হয়।


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।