রাজ্য

আবার বিস্ফোরণ নৈহাটিতে।


স্বাতী শীল: চিন্তন নিউজ:৯ই জানুয়ারি:–বিগত কিছুদিন ধরে একটা ঘটনা বারবার ঘটে চলেছে।হঠাৎ হঠাৎ বিভিন্ন সময় বিকট শব্দ এবং তার সঙ্গে ধোঁয়ায় কেঁপে উঠছে গঙ্গাপাড়ের মাটি। গত ৩ রা জনুয়ারি – র ঘটনা, সকলের‌ই জানা । নৈহাটির দেবক নামক স্থানে একটি বাজির কারখানায় ব্লাস্ট হয়, এবং ওই স্থান ও তার আশেপাশের বিস্তীর্ণ এলাকায় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়। যদিও ক্ষয়ক্ষতির সঠিক পরিমাণ এখনো প্রকাশ করা হয়নি পুলিশের তরফ থেকে। তবে এটুকু জানা গেছে যে ক্ষতি বেশ ভাল রকমের হয়েছে। ওই স্থানে পুলিশও লোকাল নেতাদের কড়া নিরাপত্তা বলয় ভেদ করে বিশেষ কোন খবরাখবর পাওয়া সম্ভব হয়ে ওঠেনি। কারখানার মালিক, শাসকদলের মদতপুষ্ট এবং এই ঘটনার পর থেকেই পলাতক।

এরপর থেকে প্রায়ই প্রতিদিনই এইভাবে বিকট শব্দ ও ধোঁয়ার ঘটনা ঘটেই চলেছে। এই ঘটনার প্রভাব গঙ্গা পেরিয়ে চুঁচুড়া হুগলি পর্যন্ত অনুভূত হচ্ছে। বিভিন্ন জায়গা থেকে শোনা খবর অনুযায়ী এটা জানা গেছে যে, বিভিন্ন বাজি কারখানা থেকে বাজেয়াপ্ত বিপুল পরিমাণ বে-আইনি বাজি পুড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে পুলিশের তরফ থেকে। কিন্তু এত তীব্র আওয়াজ আর কম্পনের কারণ আজও অজানা। কারণ পুলিশের তরফ থেকে সঠিক কোনো বিবৃতি এখনো আসে নি।

আজ,০৯/০১/২০২০ আবার দুপুর আড়াইটে নাগাদ যথারীতি একই রকমভাবে বিকট শব্দ এবং তৎপরবর্তী তীব্র কম্পনে কেঁপে ওঠে গঙ্গার পাড়ের এলাকা এবং গঙ্গাপাড়ের উল্টোদিকের চুঁচুড়া ও হুগলির বিস্তীর্ণ এলাকা। হুগলির কাছে বকুলতলা নামক স্থানে এক প্রত্যক্ষদর্শীর ক্যামেরায় ধরা পড়ে সেই ধোঁয়া। তীব্র কম্পনের ফলে বেশকিছু বাড়ির জানলা ও দরজার কাঁচ ভেঙে রাস্তায় ছড়িয়ে পড়তে দেখা গেছে। সেই প্রত্যক্ষদর্শী আরও বলেন যে,কম্পন এবং শব্দের তীব্রতা এতটাই বেশি ছিল যে তিনি সাইকেল থেকে পড়ে যান । কারণ বকুলতলার ঠিক উল্টোদিকে নৈহাটির একটি ঘাটের কাছে এই ঘটনাটি ঘটে।।
মানুষের মধ্যে একটাই আলোচনা , এটাও হয়তো ধামাচাপা পড়ে যাবে শাসক দলের নিপুণ কৌশলে।


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।