রাজ্য

রাজ্যের স্বরাষ্ট্র সচিবকে সরানো হল তাঁর পদ থেকে


নিউজডেস্ক, চিন্তন নিউজ, ১৬মে : গতকাল ১৫ই মে রাজ্যের স্বরাষ্ট্র সচিব অত্রি ভট্টাচার্যকে তাঁর পদ থেকে সরিয়ে দিলেন নির্বাচন কমিশন। বর্তমানে মুখ্যসচিব এই দুটি দপ্তর পরিচালনা করবেন, এমনই খবর কমিশন সূত্রে।
নির্বাচন কমিশন আর‌ও একটি নজির বিহীন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। সপ্তম অর্থাৎ শেষ দফার ভোট ১৯শে মে। সেই মতো ১৭ই মে বিকেল পাঁচটায় প্রচার অভিযান বন্ধ হ‌ওয়ার কথা। কিন্তু ৩২৪ ধারা প্রয়োগ করে আজ ১৬ই মে রাত দশটায় ভোট প্রচারের শেষ সময় বলে ঘোষণা করা হয়েছে। স্বভাবতই এই ঘোষণার ফলে তৃণমূল কংগ্রেস ভীষণ ক্ষিপ্ত। তৃণমূল সুপ্রিমো তথা বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই ঘোষণার পরেই সাংবাদিক সম্মেলনে তাঁর ক্ষোভ উগড়ে দেন। তিনি নির্বাচন কমিশন কে পক্ষপাত দুষ্ট বলে অভিহিত করেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আরও বলেন বিজেপির প্ররোচনায় চলছেন নির্বাচন কমিশন।
ভোট প্রচারের শেষ সময় এগিয়ে নিয়ে আসায় কংগ্রেস ও ক্ষুব্ধ। ১২৬ নাম্বার ধারা লঙ্ঘিত হচ্ছে বলে উল্লিখিত। কংগ্রেস নেতা রণদীপ সিং সরজেওয়ালা বলেন নমিনেশন ফাইলের দিন অনুসারে সব প্রার্থীর প্রচারে সম অধিকার লঙ্ঘিত হচ্ছে।
মুখ্য নির্বাচন আধিকারিক আরতাফ জানান গত ১৩ই মে স্বরাষ্ট্র সচিব অত্রি ভট্টাচার্য্য নির্বাচন কমিশনে একটি চিঠি পাঠান এই মর্মে যে, কুইক রেসপন্স টিমে রাজ্য পুলিশদের মোতায়েন করা হোক। এই চিঠিতে কমিশনকে এবং নির্বাচন প্রক্রিয়াকে প্রভাবিত করার ইঙ্গিত স্পষ্ট। এই কারণেই স্বরাষ্ট্র সচিবকে সরানো হয়েছে। যাতে করে কেন্দ্রীয় বাহিনী ও রাজ্যপুলিশ একত্রে নিরপেক্ষ ভাবে, সমন্বয় রেখে কাজ করতে পারেন।
আর‌ও সরানো হয়েছে এ রাজ্যের সিআইডির এডিজি রাজীব কুমার কে। রাজীব কুমারকে এ রাজ্যের দায়িত্ব থেকেই সরিয়ে দেওয়া হয়েছে।
নির্বাচন কমিশনের পুলিশ পর্যবেক্ষক বিবেক দ্যুবে বলেন পশ্চিমবঙ্গে যে সন্ত্রাস ও আতঙ্কের পরিবেশ তৈরী হয়েছে তাতে পুলিশ ও কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে নিরপেক্ষ ভোট পরিচালনা করতে এই পদক্ষেপ জরুরি।


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।