রাজ্য

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রতিশ্রুতি ভঙ্গের উপর ক্ষোভ প্রকাশ নিহত পুলিশ অফিসার অমিতাভ মালিকের বাবা সৌমেন মালিকের।


পাপিয়া মজুমদার: চিন্তন নিউজ:২৫শে অক্টোবর:- মুখ্যমন্ত্রী (মমতাময়ী মা) প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন ছেলের খুনিদের উপযুক্ত শাস্তি দেবেন। কিন্তু সে প্রতিশ্রুতি উনি রাখেন নি। উপরোন্তু তিনি প্রতিশ্রুতি ভঙ্গ করেছেন বলে দাবি করেছেন নিহত সাব ইন্সপেক্টর অমিতাভের বাবা সৌমেন মালিক।

ছেলের খুনিদের সাথে হাত মিলিয়েছেন রাজ্য সরকার। প্রতারণা করেছেন সরকার ও শাসক দল। মোর্চা ও তৃণমূল এর জোট প্রস্তাবের কথা শোনার পর প্রতিক্রিয়া নিহত অমিতাভের বাবার। তিনি বললেন বিচারের জন্য এবার রাজ্যপালের কাছে যাবেন। ছেলের হত্যার সিবিআই ও এন আই এ এর তদন্ত দাবি করলেন।

প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালের ১৩ ই অক্টোবর বিমল গুরুংকে ধরার জন্য দার্জিলিং এর পাতলেভাতে মোর্চার ডেরায় ডেরায় অভিযান চালাতে গিয়ে খুন হন রাজ্য পুলিশের সাব ইন্সপেক্টর অমিতাভ মালিক। এফ আই আর এ নাম ছিল মোর্চা নেতা বিমল গুরুং ও রোশন গিরি সহ অন্যান্যদের।

বুধবার কোলকাতায় এসে বিমল গুরুং সাংবাদিক বৈঠক করে বলেন, “বিজেপি জোট ছেড়ে তারা তৃণমূলের সাথে গাঁটছড়া বাঁধতে চান।” তৃণমূলের পক্ষ থেকে তার সম্মতিও জানানো হয়েছে।

বিষয়টি জানাজানি হ’তেই ক্ষোভে ফেটে পড়েন নিহত অমিতাভের বাবা সৌমেন মালিক। তাঁর দাবি মুখ্যমন্ত্রী কথা দিয়েছিলেন অমিতাভের খুনিদের শাস্তি হবেই। কিন্তু তার বদলে দেখা যাচ্ছে ছেলের খুনিদের সাথে সরকার হাত মিলাচ্ছে। তাঁর দাবি তাঁদের সাথে সরকার শাসক দল প্রতারণা করছে। তিনি আজ নিশ্চিত যে, এই সরকারের কাছে বিচার পাওয়া যাবে না। এই বিষয়ে পরবর্তী পদক্ষেপ হিসাবে তাঁরা রাজ্যপালের মাধ্যমে কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে যাবেন।

সৌমেন মালিক এর বক্তব্য -” আমার ছেলের আসল খুনী কে? বিমল গুরুং নয়? রোশন গিরি নয়? তাহলে এতদিন যাদের খুনী বলে চালালো, আজ তাদের কি করে কাছে টেনে নিলো? তাহলে আমার ছেলের আসল খুনী কে? আমি চাই তার সত্যতা প্রকাশ্যে আসুক। এর জন্য আমি সিবিআই তদন্ত চাইছি।”

রাজনীতির শিকার পুলিশরা, রাজনৈতিক শিকার হয়ে গেছে তাঁর ছেলেও – মত সৌমেন মালিকের। তাই তিনি চাইছেন এর সিবিআই তদন্ত হোক, এন আই এ তদন্ত হোক।

তিনি আরও আশংকা প্রকাশ করছেন যে,তাঁর এই তদন্ত দাবি করার জন্য তাঁদের উপর আক্রমণ হতে পারে। কিন্তু তিনি আর ভয় পাননা। শত আক্রমণ এলেও তিনি আর চুপ থাকবেন না। যতক্ষণ না ছেলের খুনিদের শাস্তি না হচ্ছে, ততক্ষণ তিনি লড়ে যাবেন।
মুখ্যমন্ত্রী প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন রাজ্যের মমতাময়ী মায়ের মতো। কিন্তু সে প্রতিশ্রুতি উনি ভঙ্গ করেছেন গতকাল সেই খুনীদের দলে টেনে নিয়ে। ইউ এ পিএ আইনে অভিযুক্ত গুরুং এর কোলকাতা আসা নিয়ে ও পুলিশের নিস্ক্রিয়তার ও প্রশ্ন উঠছে।

অন্যদিকে অমিতাভের স্ত্রী বিউটি মালিকের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগ্রে দেন নিহত অমিতাভের বাবা। তিনি বলেন বিউটি তাদের কোনো খোঁজ খবর রাখেন না। ছেলের মৃত্যুর পর সরকারের বিচারের আশায় বসে থাকা বাবার বিশ্বাস ভঙ্গের অভিযোগের কি জবাব দেয় সরকার এটাই এখন দেখার।

.


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।