রাজ্য

রাজীব কুমারের পুনরাভিষেক এবং দলীয় ফায়দা।


সলিল ঘোষাল,নিজস্ব প্রতিবেদন: চিন্তন নিউজ: ২৯/১২/২০২৩:- মমতা ব্যানার্জির দলের একঝাঁক নেতা-মন্ত্রী কোনো না কোনো চুরি চামারির অভিযোগে অভিযুক্ত হয়ে জেল খাটছে !! তাদের প্রত্যেকের বিরুদ্ধে সি বি আই হানা চলাকালীন মমতা ব্যানার্জি র কিন্তু কোনো তাপ উত্তাপ আমরা কেউ-ই লক্ষ করিনি !! অথচ অত্যন্ত আশ্চর্যজনক ভাবে রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে সি বি আই হানার খবর পাওয়া মাত্রই মমতা ব্যানার্জি দল বল সহ শীতের রাতে রাজীব কুমারের বাড়ির সামনে ধর্ণায় বসে পড়লো, যাতে করে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার লোকজন রাজীব কুমারের বাড়িতে প্রবেশ করতে বাধা পায় এবং রাজীব কুমারকে গ্ৰেফতার করতে না পারে !! প্রশ্ন হ’ল, রাজীব কুমারের প্রতি মমতা র কিসের এত দুর্বলতা ??!! একজন পুলিশ অফিসার কে সি বি আই ‘র হাত থেকে রক্ষা করার জন্য তার এত ব্যাকুলতাই বা কেনো ??!! এর শিকড়ের জট সারদা র দোড়গোড়া পর্যন্ত জড়িয়ে আছে। যে সারদা কেলেঙ্কারিতে কুণাল ঘোষকে ৩৭ মাস জেল খাটাতেও মমতা ব্যানার্জি কুন্ঠা বোধ করেনি, সেই সারদায় সন্দেহের তালিকায় থাকা রাজীব কুমারের গায়ে যাতে কোনো আঁচড় না লাগে তার জন্য মমতা ব্যানার্জি একেবারে কোমর বেঁধে রাস্তায় নেমে পড়লো !!

বিষয় টা অতীব সাধারণ–সারদা কেলেঙ্কারিতে একবার যদি রাজীব কুমার কোনো ভাবে গ্ৰেফতার হয়ে যায়, তাহলে ওই কেলেঙ্কারির সাথে মমতা এবং তার ভাইপোর যোগসাজশের কথাটা কে আর কোনো ভাবেই চেপে রাখা যাবে না–রাজীব কুমার নিজেকে নির্দোষ প্রমান করার স্বার্থে সারদায় যোগসাজশের দায় ভার টা মমতা এবং তার ভাইপোর উপর যে চাপিয়ে দিতেই পারে সে ব্যাপারে মমতা ব্যানার্জি অনেকটাই নিশ্চিত ছিল। মূলত সেই কারণেই নিজেকে রাজীব কুমারের রক্ষাকারী হিসাবে প্রমান করতে সেদিন নাটকীয় ভাবে সি বি আই ‘র হাত থেকে রাজীবকে রক্ষা করে পিছনের দরজা দিয়ে পালিয়ে যেতে সাহায্য করেছিল। এখন সেই লাল ডায়েরি ও নেই আর সারদার তদন্ত ও বিশ বাঁও জলে !! এখন মমতা ব্যানার্জির অনুপ্রেরণায় রাজীব কুমার মুক্ত–সুতারাং এবার রাজীব কুমার কে যত টা সম্ভব দলীয় স্বার্থে ব্যবহার করা যায় তার ই ওয়ার্ম আপ। তাকে আবার আগের জায়গায় স্থলাভিসিক্ত করে এবং তাকে কাঠের পুতুল বানিয়ে, গোটা পুলিশ প্রশাসন কে নিজের পক্ষে কাজে লাগিয়ে আগামী লোকসভা এবং তার ঠিক দুই বছর পর আবার রাজ্য বিধানসভা নির্বাচনের‌ বৈতরণী পার হওয়াটাই এখন মমতা ব্যানার্জি মূখ্য উদ্দেশ্য !!


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।