জেলা

পূর্ব বর্ধমান জেলার খবর


চিন্তন নিউজ, কল্পনা গুপ্ত, ১৫ জুন,২০২৪:-
আরপিএফের জুলুম বাজির বিরুদ্ধে শ্রমিক সংগঠন বিক্ষোভ প্রদর্শন করলো।
ঘটনাটি ঘটে গত ১২ জুন কামারকুন্ডু স্টেশনে। রাকেশ হালদার নামে একজন লজেন্স বিক্রেতা রেল হকার ট্রেনে উঠে হকারি করছিলেন। আরপিএফ সেই রেল হকারকে ধাক্কা মেরে ট্রেন থেকে ফেলে দেয়। পড়ে গিয়ে রেল লাইনেই তাঁর মৃত্যু হয়। এই ন্যক্কারজনক ঘটনার প্রতিবাদে গত ১৪ জুন বর্ধমান স্টেশনে রেল হকার্স ইউনিয়ন ও সি আই টি ইউ বর্ধমান শহর ১ এরিয়া সমন্বয় কমিটির উদ্যোগে বিক্ষোভ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। এই বিক্ষোভ কর্মসূচিতে দাবি ওঠে – আরপিএফ এই হকারকে ট্রেন থেকে ধাক্কা মেরে ফেলে দিয়ে হত্যা করলো তাকে গ্রেপ্তার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে এবং রেল হকারদের উপর এই জুলুমবাজি বন্ধ করতে হবে। আরপিএফ এই হকারদের কাছ থেকে ফাইনের নাম করে তোলাবাজি করে, তোলার টাকা না দিলেই তাদেরকে মারধর করে, অ্যারেস্ট করে। এ নিয়ে সিআইটিইউ ধারাবাহিক আন্দোলনে আছে। কিন্তু কামারকুণ্ডুর এই ঘটনায় বোঝা গেলো যে একজন গরিব রেল হকারকে হত্যা করতে আরপিএফ সিদ্ধহস্ত। বিক্ষোভ সভা থেকে দাবি ওঠে, মৃতের পরিবারকে আর্থিক ক্ষতিপূরণ দিতে হবে এবং পরিবারের একজনকে চাকরি দিতে হবে। বিক্ষোভ কর্মসূচি শেষে স্টেশন চত্বরে মিছিল করা হয়। এই কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন সি আই টি ইউ পূর্ব বর্ধমান জেলা কমিটির সভাপতি নজরুল ইসলাম, সমন্বয় কমিটির সম্পাদক দেবদুলাল ঠাকুর, সভাপতি কাজল রায়।

গত ১৩ জুন রাত্রে ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি (মার্কসবাদী) মঙ্গলকোট এরিয়া কমিটির লাখুরিয়া -মঙ্গলকোট শাখার পার্টি সদস্য উত্তম কুমার দে নিজ বাসভবন সিউর গ্রামে দীর্ঘ রোগভোগের পর ৬০ বছর বয়সে মারা যান। ২০০৬ সালে পার্টির সদস্য পদ অর্জন করেন।প্রয়াত উত্তম কুমার দে মঙ্গলকোট ব্লক কৃষক কমিটির সদস্য ছিলেন।
তাঁর মরদেহে পার্টির রক্ত পতাকা দিয়ে শ্রদ্ধা জানান পার্টির জেলা কমিটির অন্যতম সদস্য দুর্যোধন সর , মঙ্গলকোট এরিয়া কমিটির সম্পাদক শাহজাহান চৌধুরী, মঙ্গলকোট এরিয়া কমিটির সদস্য অচিন্ত্য রায় , দিলীপ রায়। উপস্থিত এরিয়া কমিটির সদস্যগণ, শাখা কমিটির সদস্যগণ, গণসংগঠনের কর্মীবৃন্দ মাল্যদানের মধ্য দিয়ে শেষ শ্রদ্ধা জানান।


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।