দেশ রাজ্য

বিপদে উত্তর বঙ্গের পর্যটন


সুপর্ণা রায়, চিন্তন নিউজ, ১৮ ডিসেম্বর: ট্রেন বাতিলের ধাক্কায় উত্তর বঙ্গের পর্যটন শিল্প বিশাল বিপর্যয়ের সন্মুখীন। গত তিন দিন ধরে ডুয়ার্সের সাথে দেশের বিভিন্ন জায়গার যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। কারণ নাগরিকত্ব সংশোধনী বাতিলের জেরে যে আন্দোলন চলছে তার ফলে যোগাযোগ রক্ষাকারী সব ট্রেন বাতিল করা হয়েছে।

এর ফলে এই ভরা মরশুমে একের পর এক বুকিং বাতিল হচ্ছে। খাঁ খাঁ করছে লাটাগুড়ি, ঝালঙ, বাতাবাড়ি এলাকার সরকারি বেসরকারি হোটেল ও রিসর্ট গুলো। বেশ কয়েকদিন ধরে এই অঞ্চলে শীত বেশ জাঁকিয়ে পড়েছে। কয়েকটি জায়গায় তুষারপাত হয়েছে আর ব্যাবসায়ীরা একটুখানি লাভের মুখ দেখতে পাবেন ভেবেছিলেন। সবাই আশা করেছিল পর্যটকদের ভীড়ে ভরে উঠবে এই অঞ্চল। পূজোর সময় তেমন লাভের মুখ দেখতে পাননি। তাই তারা ভেবেছিলেন ডিসেম্বরে ক্ষতি পুষিয়ে নেওয়া যাবে।

হোটেল, লজের মালিকরা ভাল বুকিং পেয়েছিলেন। কিন্তু সব আশাতে জল ঢালল। আচমকা আসাম সহ উত্তর পূর্বাঞ্চল বিক্ষোভে জ্বলে উঠলো। সেই আঁচ থেকে রক্ষা পেল না বাংলা। বিভিন্ন জায়গায় শুরু হয় রেল অবরোধ, বিক্ষোভ, অগ্নিসংযোগ। বন্ধ হয়ে যায় উত্তরবঙ্গ থেকে দক্ষিণবঙ্গ গামী সব ট্রেন।

পর্যটকদের আটকে পড়তে হয় ডুয়ার্সে। শীতের সময়ে অনেকই শীতের ডুয়ার্স দেখতে আসেন। যারা আগ্রহী ছিলেন তাঁদের অনেকেই বুকিং করেছিলেন। এবার আশাহত হয়ে বুকিং বাতিল করে দিচ্ছেন। আর এর ফলে মুখ থুবড়ে পড়েছে পর্যটন শিল্প।

লাটাগুড়ি রিসোর্ট ওনার ওয়েল ফেয়ার অ্যসোসিয়েশনের সম্পাদক দিব্যেন্দু দেব বলেন তীব্র আন্দোলনের পরিবেশ, ট্রেন ভাঙচুর, অবরোধ ইত্যাদির জেরে প্রায় হাজার খানেক পর্যটক আটকে রয়েছেন। তিন হাজারের মতো বুকিং বাতিল, আর এরই জেরে বিশাল ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে ব্যবসা। পর্যটন ব্যবসায় যারা জড়িত, সেই গাইড, হোটেল মালিক, গাড়ি ওয়ালা সবার মাথায় হাত পড়েছে।


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।