জেলা

দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা জেলার টুকরো খবর !!


সুচরিতা বোস: চিন্তন নিউজ:৪ঠা আগস্ট:- ৪ঠা অগাস্ট দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা জেলার বারুইপুর পশ্চিম বিধানসভার অন্তর্গত বারুইপুর শহরে কাছারি বাজারে অনেক দোকান ঘর ছিলো, সেখানে সকালে আগুন লাগে , এই খবর পাওয়া মাত্র বিধানসভার বাম পরিষদীয় দলনেতা সুজন চক্রবর্তী ছুটে যান আগুনে পুরে যাওযা ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের কাছে , সুজন চক্রবর্তীকে কাছে পেয়ে মানুষ তাঁদের ক্ষয় – ক্ষতি জানান! তৃণমূল পরিচালিত পুরসভার কাছে সুজন চক্রবর্তী আগুনে পুরে যাওয়া জিনিষের ক্ষতিপূরণের দাবী নিয়ে রাস্তায় লড়াই , আন্দোলোন শুরু করেন,

স্থানীয় সূত্রের খবর ঐ অঞ্চলে স্থানীয় কিছু প্রোমোটার চক্র এবং স্থানীয় কিছু তৃণমূলের নেতার যোগ -সাজস করে একটি প্রোমোটিং ব্যবসা করার মতলবে ছিলো, কিন্তু সুজন চক্রবর্তী ক্ষতিগ্রস্ত মানুষকে নিয়ে আন্দোলোন শুরু করলে, পুলিশের সামনেই শাসক দলের স্থানীয় নেতা এবং কাউন্সিলার গৌতম দাস তার বাহিনী নিয়ে সুজন চক্রবর্তীকে আক্রমণ করেন !পুলিশ ছিলো নীরব দর্শক মাত্র !

দেবু রায়:- চুরি করাটা কোনো অপরাধ নয় , কিন্তু প্রতিবাদ করে সেটাকে জন সমক্ষে আনাটা অপরাধের ! হ্যাঁ এটাই একটা নতুন দর্শন শুরু হয়েছে , ২০১১ র পর সারা দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা জেলে জুড়ে ! চৌঠা অগাস্ট এ সাগর বিধানসভার অন্তর্গত সাগর ব্লকে আম্প্যানের ত্রান নিয়ে তৃণমূলের স্বজন -পোষণ, দুর্নীতি, জনগনের দরবারে প্রমান সহ প্রকাশ করার অপরাধে সাগর ব্লকে ডিওয়াইএফ‌আই র সদস্য , সুবীর জানাকে তৃণমূলের দানব বাহিনীর আক্রমণের মুখে পড়তে হয় ! এই নিয়ে সাগর ব্লকে সাধারণ মানুষের মধ্যে ব্যাপক ক্ষোভ , যদিও সন্ত্রাসের ভয়ে মানুষ কিছু বলছে না ।


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।