জেলা

খবরে কলকাতা—


কাকলি চ্যাটার্জী: চিন্তন নিউজ:১৯শে আগস্ট:- —- ‘বিজ্ঞান মনস্কতা দিবস’ ২০১৮ সাল থেকে ২০ আগস্ট দিনটি পালিত হয়ে চলেছে ‘জাতীয় বিজ্ঞান মনস্কতা দিবস’ হিসেবে। অপবিজ্ঞান, অন্ধবিশ্বাস, ধর্মীয় গোঁড়ামি, কুসংস্কার, জাতপাতের বেড়াজাল থেকে দেশকে মুক্ত করতে মহারাষ্ট্রের আপোষহীন লড়াকু সেনানী নরেন্দ্র দাভোলকরকে ২০১৩ সালের এই দিনে খুন হতে হয়েছিল হিন্দু জনজাগ্ৰুতি সঙ্ঘের পশ্চিমাঞ্চলের কম্যান্ডার বীরেন্দ্র তাওড়ে ও তার চেলাচামুন্ডাদের হাতে। অপরাধীদের আজও কোনো সাজা হয়নি। দাভোলকরকে হত্যার কারণ তিনি ‘মহারাষ্ট্র অন্ধ শ্রদ্ধা নির্মূলন সমিতি’ নামে একটি সংগঠন চালাতেন অন্ধবুজরুকি, অতিপ্রাকৃত শক্তির ভ্রান্ত দাবীদারদের সঙ্গে। অপবিজ্ঞানের ধারকবাহকরা ব্যবসায়িক কারণে ব্যবহার করে দেশবাসীকে সুতরাং তাদের চেতনার মানোন্নয়ন হলে বিপদ তো বাড়বেই। তাই খুন হতে হয় নরেন্দ্র দাভোলকরের মত মানুষদের। তিনি খুন হয়েছেন কিন্তু খুন করা সম্ভব হয়নি তাঁর আন্দোলনের মেজাজকে, সদা জাগরুক তাঁর আদর্শ বিজ্ঞানপ্রেমী মানুষের মননে-চিন্তনে।

রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর খামখেয়ালিপনায় একাধিকবার পরিবর্তিত হয়ে আগামীকাল ২০ আগস্ট লকডাউন ঘোষণা হয়। এজন্য আজ বিজ্ঞান মঞ্চ কলকাতা জেলা কমিটির আহ্বানে গড়িয়াহাটে পালিত হয় বিজ্ঞানমনস্কতা দিবস। আজ যখন কোভিড মোকাবিলায় কেন্দ্র-রাজ্য সরকারের অবৈজ্ঞানিক পদক্ষেপের জন্য বাড়ছে বিপদের শঙ্কা, ধর্মীয় উস্কানি প্রভাব ফেলছে জনমানসে তখন আরও বেশী করে বিজ্ঞান চেতনা গড়ে তোলাই আজকের প্রধান উদ্দেশ্য। কোনোরকম সংকীর্ণতা নয়, শেষ কথা বলবে বিজ্ঞান। আজকের কর্মসূচি তে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের রাজ্যের সাধারণ সম্পাদক প্রদীপ মহাপাত্র, কলকাতা জেলার সম্পাদক শেখ সোলেমান, সভাপতি উৎপল দত্ত সহ অন্যান্য বিজ্ঞান আন্দোলনের কর্মীরা।

সংবাদদাতা —সমর প্রামাণিক এর রিপোর্ট:- লকডাউন পরিস্থিতির মধ্যে বিভিন্ন সংস্থার কর্মীদের ছাঁটাই করা হচ্ছে। কিছু ক্ষেত্রে তাদের মাইনে প্রায় কুড়ি শতাংশ ও তিরিশ শতাংশ দেওয়া হচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে অনেক কর্মচারীদের জীবন সংকটের মধ্যে। ভারতের গণতান্ত্রিক যুব ফেডারেশন দাবি জানাচ্ছে—-(১) ছাঁটাই হওয়া কর্মীদের কাজে নিয়োগ করতে হবে (২) বকেয়া মাইনে অবিলম্বে দিতে হবে। এই দাবি নিয়ে স্ট্যান্ড রোডে নিউ সেক্রেটারিয়েট বিল্ডিংএ শ্রম কমিশনারের কাছে ডেপুটেশান জমা দেওয়া হয়। বক্তব্য রাখেন যুব সংগঠনের কলকাতা জেলা সভাপতি কলতান দাশগুপ্ত।

সংবাদদাতা– অমরেশ ঠাকুরতা জানিয়েছেন, আজ রাসবিহারী ২ এরিয়া কমিটির অন্তর্গত টালীগঞ্জ রোড-নিকারিপাড়া শাখা অঞ্চলের জনস্বাস্থ্য কমিটি ও কলকাতা নাগরিক সম্মেলনের যৌথ উদ্যোগে ৮১ নং ওয়ার্ডে স্যানিটাইজ করা হল। অপদার্থ কলকাতা কর্পোরেশনের কোনো ভূমিকা নেই কোভিড মোকাবিলায়, এলাকাবাসীর সুরক্ষায় দায়বদ্ধ সংগঠন আগামী দিনেও অনুরূপ কর্মসূচি পালন করবে।


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।