জেলা

ধর্মঘটে ব্যাপক সাড়া বীরভূমে


রাহুল চ্যাটার্জি: চিন্তন নিউজ:২৬ শে নভেম্বর:- ধর্মঘটের সমর্থনে আজ রামপুরহাটে সকাল থেকেই রাস্তায় সি পি আই এম, কংগ্রেসের কর্মী সমর্থকরা গোটা রামপুরহাট জুড়ে কখনও মিছিল কখনও হাইরোড পিকেটিং কোথাও অবরোধ করলো। বাজারে মিছিল চলাকালীন প্রায় ৯৯.৯% দোকান পাট বন্ধ করে সংহতি জানান দোকানদাররা, সমস্ত ব্যান্ক-ডাকবিভাগ- ফাইন্যান্স কোম্পানি- বাস পরিষেবা-বেসরকারি অফিস বন্ধ। রামপুরহাট বাসস্ট্যান্ডে ভোর ৫টাই শুরু হয় এদিনের পিকেটিং পরে যা বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ মোড়মাথা গুলিতেও দেখা যায়। শেষে পাঁচমাথা মোড়েও প্রায় ঘন্টা খানেক অবরোধ চলে ও পথসভা অনুষ্ঠিত হয়। রামপুরহাট সংলগ্ন মাসড়া পাথর শিল্পাঞ্চলের শালবাদড়া তেও বনধ পালিত হয় স্বতঃস্ফূর্ত ভাবে।
তবে এদিন ধর্মঘটের সমর্থনে ইলামবাজারে শান্তিপূর্ণ মিছিলে ছাত্র যুবদের উপরে দলদাস পুলিশের লাঠিচার্জ আহত হয়েছেন এস‌এফ‌আই বীরভূম জেলা কমিটির সম্পাদক কমরেড ওয়াসিফ ইকবাল, কমরেড তহসিফ মন্ডল, মোঃ মোবাশ্বের সহ অন্যান্য ছাত্র যুবরা। মোট ৬ জন ছাত্র-যুব কর্মী আহত হন।এই ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছেন সিপিআইএম নেতা তথা প্রাক্তন সাংসদ ডা: রামচন্দ্র ডোম।

অভূতপূর্ব ব্যাপক জনসমর্থনের মধ্য দিয়ে আজ মুরার‌ই এলাকাতেও পালিত হয় সাধারণ ধর্মঘট। ব্যাংকসহ সমস্ত সরকারি দপ্তরে ধর্মঘট পালিত হয়।মুরারই বাজারের সমস্ত ব্যবসায়ীগণ ধর্মঘট সমর্থন করে আজ দোকানপাট বন্ধ রাখেন। যানবাহন প্রায় সমস্তই বন্ধ ছিল। লোকজনের আনাগোনা ছিল অত্যন্ত কম। ধর্মঘট কে কেন্দ্র করে সিআই টি ইউ, আই এন টি ইউ সি, টি ইউ সি সি সমস্ত শ্রমিক সদস্যগণ আজকের ধর্মঘটের সমর্থনে মিছিলে অংশগ্রহণ করে। বারংবার পথ অবরোধ হয়।

বোলপুর শহর তথা বোলপুর সব ডিভিশনের বিভিন্ন এলাকায় তথা কীর্ণাহারেও বনধ সর্বাত্মকভাবে পালন হয়। সমস্ত দোকান, ব্যাংক, পোস্ট অফিস,স্কুল, এলআইসি অফিস,পরিবহন ব্যবস্থা থাকে সম্পূর্ণ বন্ধ। সকাল থেকে বিভিন্ন জায়গায় জায়গায় পিকেটিং, রাস্তা অবরোধ চলে। পুলিশি বাধা অতিক্রম করেই বনধ চলে ঐ সমস্ত এলাকায়।

সিউড়ি, দুবরাজপুর, সাইথিয়া, মহম্মদবাজার, মল্লারপুর, নলহাটি লোহাপুর প্রভৃতি এলাকা গুলিতেও সকাল থেকে ধর্মঘটের সমর্থনে মিছিল ও অবরোধ শুরু হয়। লোহাপুরে ধর্মঘটকে সফল করতে এস‌এফ‌আই/ডিওয়াইএফ‌আই বিক্ষোভ দেখায় জাতীয় সড়কের উপর। মল্লারপুর এ ১৪নং জাতীয় সড়কের উপর বাহিনা মোড়ের কাছে টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ দেখায় ধর্মঘটীরা। বীরভূম জেলা জুড়ে এদিনের ধর্মঘটের রাশ ছিল ছাত্র-যুব দের হাতে বলা যেতে পারে অসংখ্য কালো মাথার উপস্থিতি দেখে। গোটা জেলা তেই ঝাঁঝালো স্লোগান ও পিকেটিং করার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ন ভূমিকায় দেখা যায় তাদের।


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।