জেলা

আন্তর্জাতিক দিবসের দাবি -সুরক্ষিত থাক কন্যাভ্রুণ থেকে শিশুকন্যাদের জীবন


মিতা দত্ত: চিন্তন নিউজ:১১ই অক্টোবর:- আন্তর্জাতিক শিশু কন্যা দিবসের দাবী হোক সেই সমাজব্যবস্থা ,যেখানে পৃথিবীর কোনো শিশুকন্যা অবাঞ্ছিত হবে না ও সকলে সুরক্ষিত হবে।
এমন ব্যবস্থায় আমরা বাস করি, যেখানে শিশুকন্যা দিবস পালন একটা চটকদার ছাড়া আর কিছুই না। সভ্যতার ঊষালগ্নে যখন মানুষ তথাকথিত সভ্য ছিলো না, তখন শিশুকন্যা ছিল নিরাপদ ।কিন্তু আমরা যত সভ্যতার ও ধর্মের তকমা গায়ে লাগিয়েছে শিশুকন্যা ততই অবাঞ্ছিত হয়ে পড়েছে।

আজ মনে পড়ছে নাম না জানা অনেক মেয়ের কথা যারা শুধু মেয়ে হয়ে জন্মানোর অপরাধে ভ্রুণ অবস্থায় মৃত্যুদন্ড দেওয়া হয়। মনে পড়ছে রাজস্থানের নাম না জানা সেই মেয়ের কথা যাকে মা পরিবারের অন্যচারে কন্যাসন্তানকে মেরে দিয়েছিল। আরো কতো ঘটনা যা আমাদের কর্ণগোচর হয় না হলেও ,মৃত্যু হয়। মনে পড়ছে আসিফা সহ আরো বালিকার কথা যারা ধার্মিকতার বর্ম পরিহিত মানুযের দ্বারা প্রথমে ধর্ষিত ও পরে আসামী তকমা গায়ে না লাগানোর ইচ্ছায় পৃথিবীর রূপ, রস, গন্ধ থেকে শিশুকন্যাকে বঞ্চিত করে। বাংলাদেশের সেই পালিত কন্যা যে বাবা মেয়েকে রক্ষা করতে না পেরে মেয়ে নিয়ে রেললাইনে ঝাঁপ দেয়। আরো আরো আরো!

কিন্তু সমস্যা নিয়েই চর্চা করলে সমস্যা কমে না, সমাধানের রাস্তা খুঁজতে হয়। সমাধানের একটাই রাস্তা সমাজতান্ত্রিক ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা। মনে হতেই হয়ে পারে কাজটি সহজ নয়। কিন্তু কঠিনও নয় তার প্রমাণিত করে দিয়েছে পৃথিবীর বেশ কয়েকটি দেশ। তবে সংগ্রামই একমাত্র রাস্তা।

আমরা যদি লক্ষ্য করি তবে দেখবো সামন্ততান্ত্রিক ব্যবস্থায় ও ধনতান্ত্রিক ব্যবস্থায় শিশুকন্যা হাল কমবেশি একইরকম। যদিও এখন কিছু শিশুকন্যা পরিবারে সমাদৃত কিন্তু আমাদের লক্ষ্য সকল শিশুকন্যাই সমান সমাদৃত হবে একমাত্র সমাজতান্ত্রিক ব্যবস্থায় শিশুকন্যা মানুষের আসনে অলংকৃত। তাই আসুন আমরা সুন্দর পৃথিবী গড়ে তোলার জন্য নিবেদিত হই।তবেই আজকের দিনের স্বার্থকতা।


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।