দেশ

করোনায় , চিকিৎসকদের সংক্রমণ বেড়েই চলেছে ভারতবর্ষে।


সূপর্ণা রায়: চিন্তন নিউজ:২৭শে এপ্রিল:– চিকিৎসকদের সংক্রমণ এখন পশ্চিমবঙ্গের স্থান প্রথম।। একের পর এক হাসপাতাল ও নার্সিং হোমের দরজা বন্ধ হয়েছে সংক্রমণের জেরে।। এই অতিমারী যারা সামনের সারিতে দাঁড়িয়ে যুদ্ধ করছেন তাঁদের সুরক্ষায় চরম অপদার্থতা দেখিয়েছে ভারত সরকার সহ পশ্চিমবঙ্গের সরকার।।অথচ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ঘোষণা করেছিলেন যারা সামনের সারিতে দাঁড়িয়ে এই অসম যুদ্ধে অংশ নিচ্ছেন তাঁদের জন্য থালা বাসন,ঘন্টা বাজানো বা মোমবাতি জ্বালিয়ে সন্মান জ্ঞাপন করতে।। আজ এই সময় দাঁড়িয়ে সবারই মনে হচ্ছে ওইসব না করে যদি তাঁদের সুরক্ষার ব্যবস্থা গ্রহণ করতেন তবে ডাক্তার, নার্স বা স্বাস্থ্য কর্মীদের প্রতি যোগ্য সন্মান জানানো হত।।

ভারতবর্ষের ডাক্তার ও তাঁদের সহযোগীদের সংক্রমণ দিনে দিনে এক ভয়ঙ্কর রূপ ধারণ করছে।। গতকাল দিল্লিতে দু’টি হসপিটাল “সিল” করে দেওয়া হয়েছে।। পুলিশ কর্মীদের উপরের ও করোনা সংক্রমণ ভালোই প্রভাব ফেলেছে।। বানিজ্য রাজধানী মুম্বাইতে এক পুলিশ কর্মীর করোনা সংক্রমণে মৃত্যু হয়েছে।। করোনা ভাইরাস এর ভয়ে একের পর এক হসপিটাল বন্ধ হয়েছে মুম্বাইতে।।

বেশীরভাগ চিকিৎসক , নার্স বা স্বাস্থ্য কর্মীদের কোয়ারান্টিনে চলে যাওয়ার জন্য চিকিৎসা ব্যবস্থাটাই ভারতে ভেঙে পড়তে চলেছে আর সাধারণ মানুষের মধ্যে প্রচন্ড আতঙ্ক তৈরি হয়েছে।। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক তাদের সংবাদ বুলেটিনে বলেছে গত ২৪ ঘন্টার মধ্যে ১৯৭৫ জন সংক্রামিত হয়েছে যা ২৪ ঘন্টার মধ্যে সর্বাধিক।।

সরকারি ঘোষণা মতো দ্বিতীয় দফার লকডাউন শেষ হচ্ছে আগামী ৩রা মে।।। ভারতবর্ষের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আজ সোমবার প্রায় সব রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে রাজ্যে গুলোর অবস্থা জানতে আলোচনা করবেন।। বিরোধী দলগুলো মহামারী প্রতিরোধের ব্যর্থতা নিয়ে বারবার সরব হয়েছেন।। চিকিৎসক বা স্বাস্থ্য কর্মীদেরও পুলিশের যথাযথ সুরক্ষার ব্যবস্থা নিয়ে সরব হয়েছেন।। চাপে পড়ে কেন্দ্রীয় সরকার জানান যে পিপিই তৈরি লক্ষাধিক বাড়ানো হয়েছে।।

এরই মধ্যে মুম্বাই পুলিশ তাদের এক ট্যুইট বার্তা তে জানিয়েছেন যে তাঁদের এক ৫২ বছর বয়সী সহকর্মী করোনা ভাইরাস এর সংক্রমণের আক্রমণের জেরে মৃত্যু হয়েছে।

ওরলিতে বসবাসকারী আরও এক কর্মীর মৃত্যু ঘটেছে।। মহারাষ্ট্র পুলিশের ৯৭ জন কর্মী আধিকারিক এর করোনা ভাইরাস সংক্রমণ পজিটিভ এসেছে।। মহারাষ্ট্রের করোনা সংক্রমণ দেশের মধ্যে সর্বাধিক।। ইতিমধ্যে মহারাষ্ট্রে সংক্রামিত হয়েছে ৮ হাজার এবং মৃত্যু হয়েছে এখনো পর্যন্ত ৩২৪ জনের।। তারপরের স্থানে রয়েছে পুনে, সেখানে আক্রান্ত এর সংখ্যা ১০৩০ জন।। এখন ই যদি সতর্কতা অবলম্বন না করা হলে দেশের অবস্থা খারাপ থেকে খারাপতর হতে বেশি সময় লাগবে না।।।


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।