জেলা

লকডাউনে চলল অবৈধ বালি পাচার


রাহুল চ্যাটার্জি, চিন্তন নিউজ, ৮ সেপ্টেম্বর: গতকাল সারা রাজ্যে ছিল লকডাউন। কারণ বলতে মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রীর খেয়াল। এইভাবেই নাকি করোনা মোকাবিলা সম্ভব হবে। অতএব সব স্তব্ধ। শুধু চালু থাকবে জরুরি পরিষেবা। তবে লকডাউনে চালু ছিল বালি মাফিয়াদের সক্রিয়তা, দৌরাত্ম। গতকাল রামপুরহাট ২ নং ব্লকের নারায়নপুরে মা-মাটি-মানুষের সেই সুশাসনের ছবিই আরো একবার ফুটে উঠলো!!

লকডাউনে যখন সব বন্ধ তখন প্রশাসনের নাকের ডগায় নারায়নপুরে নদীর ঘাট থেকে সম্পূর্ণ বেআইনী ভাবে বালি তুলে শ’য়ে শ’য়ে ট্রাকে করে তা পাচার হয়ে যাচ্ছে। কারোর জানতে বাকী নেই রাজ্য শাসক দলের বড় মাঝারি ছোটো সব নেতাদের এই বেআইনী কারবারের সঙ্গে সম্পর্ক প্রত্যক্ষ। তবে চোখ রাঙানির দিন শেষ। মানুষ রুখে দাঁড়াচ্ছেন। তৃণমূলের এই দুবৃর্ত্তায়ন মানুষ আর এক মুহূর্তের জন্যেও মেনে নিতে প্রস্তুত নয়। তৃণমূলের দলের ভেতরেও এমনকি অনুব্রত মন্ডলদের চোখ রাঙানি চ্যালেঞ্জের মধ্যে পড়েছে।

নারায়নপুর সহ সর্বত্র বেআইনী বালি তোলা এবং পাচার বন্ধ করার দাবী জানিয়েছে সিপিআই(এম)। বালি মাফিয়াদের বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তি মূলক ব্যবস্থা গ্রহণের জন্যে জেলা ও মহকুমা প্রশাসনের কাছে দাবী জানাবে বলে আন্দোলনের পথই তারা বেছে নিয়েছেন। একই সঙ্গে বালি মাফিয়াদের বিরুদ্ধে যে সকল সাধারণ মানুষ প্রতিবাদে পথে নেমেছেন তাদের সেলাম জানিয়েছেন তাঁরা। এর পরেও যদি প্রশাসন বালি মাফিয়াদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ না করে তবে তারা বৃহত্তর আন্দোলনে নামবেন বলে জানিয়েছেন সিপিআইএম বীরভূম জেলা সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য সঞ্জীব বর্মন।


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।