রাজ্য শিক্ষা ও স্বাস্থ্য

প্রাথমিক শিক্ষকদের অনশনের ১৫০ ঘন্টা অতিক্রান্ত, নিরুত্তাপ প্রশাসন


মীরা দাস, চিন্তন নিউজ, ২০ জুলাই: যোগ্যতা অনুযায়ী বেতনের দাবীতে একাধিক বার আন্দোলনে নেমেছিলেন রাজ্যের বঞ্চিত প্রাথমিক শিক্ষকরা। এই আন্দোলন তীব্র আকার ধারন করে গত মাসের ২৪ তারিখে। সে দিন মিছিলের শেষে লাঠি, গ্রেফতার, জলকামান প্রাপ্তি হয়েছে প্রাথমিক শিক্ষকদের।

সেদিন প্রায় ৪০ হাজার শিক্ষকের মিছিল স্রোত আছড়ে পড়ে রানী রাসমনি এভিনিউতে। জল কামানের আঘাতে আহত হন বহু শিক্ষক এবং অনেককে গ্রেফতার করে নিয়ে যাওয়া হয় লাল বাজার সেন্ট্রাল লক্ আপে। পাশাপাশি শিক্ষকদের বেতন কাঠামো নিয়ে আলোচনা করে শিক্ষক সংগঠন ইউ ইউ পি টি ডাব্লু এ। সংগঠনের পক্ষ থেকে দাবি রাখা হয় পে কমিশন ঘোষনার আগেই পি আর টি স্কেল ঘোষনা করতে হবে। এ ছাড়া ১৪ জন শিক্ষককে অনৈতিক ভাবে জেলার বাইরে বদলি করা হয়েছিল, তাদের নিজের জেলাতে ফিরিয়ে আনতে হবে।

সংগঠনের পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয় ১৫ দিনের মধ্যে যদি দাবি না মানা হয়, তাহলে শিক্ষকরা আবার রাস্তায় নামতে বাধ্য হবেন।বর্তমানে ১৫ দিন সময় সীমা অতিক্রান্ত হয়ে গেলেও শিক্ষা দফতর নির্বিকার। UUPTWA নেতৃত্বে ১২ জুলাই বিকাশ ভবন অভিযান করেন অন্তত ৫০ হাজার প্রাথমিক শিক্ষক। PRT স্কেলের দাবি যতক্ষন না মানা হচ্ছে ততক্ষন অনির্দিষ্ট কালের জন্য বিকাশ ভবনের সামনে অনশনে বসেছেন তাঁরা ১৩ জুলাই থেকে।

বর্ষার আবহে তীব্র দাবদাহ উপেক্ষা করে অনশন রত সমাজ গড়ার কারিগররা। শুধু রাজ্য সরকারের তরফ থেকে জুটেছে হুমকি। অনশনরত শিক্ষক অরুন কুমার দাস গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে তাঁকে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।