জেলা

নজরে হাওড়া—–


চিন্তন নিউজ:৯ ই সেপ্টেম্বর:- দেবাশিস কারক এর রিপোর্ট:- শহীদ স্মরণ ও শ্রদ্ধাজ্ঞাপন, সালটা ছিল ১৯৪৯. তেভাগা আন্দোলনের প্রভাব তখন গ্ৰাম-গঞ্জে। হাওড়া জেলার প্রত্যন্ত গ্ৰাম হাঁটালও তার ব্যতিক্রম নয়। ভাদ্র মাস, ঘরে ঘরে খাদ্যাভাব! গ্ৰামের মহিলারা নিরুপায় হয়ে জোতদারদের বাড়ি গিয়েছিলেন ধান ধার চাইতে। বিমুখ করেছিল জোতদারবাহিনী। শুধুমাত্র তাই নয় ৯ সেপ্টেম্বর গ্ৰামে জোতদারদের নেতৃত্বে পুলিশ হামলা চালায়। পুরুষরা কাজের সন্ধানে গ্ৰামের বাইরে, পুলিশ পিছু হটেছিল গ্ৰামের মহিলাদের সংঘবদ্ধ বাহিনীর মুখে পড়ে! কিন্তু না, জমিদার- জোতদারদের প্ররোচনায় ফিরে এসে গুলি চালায়। শহীদ হন গর্ভবতী সুধাময়ী সাঁতরা, বৃদ্ধা মাখনময়ী পন্ডিত, সিন্ধুবালা দলুই, পারুলবালা সাঁতরা, বালিকা পাত্র এবং নবমবর্ষীয়া বালিকা যশোদা সাঁতরা। তাঁদের স্মরণে আজ হাঁটালে পালিত হয় শহীদ দিবস, হাওড়া জেলা কৃষক সভা ও খেতমজুর ইউনিয়নের যৌথ উদ্যোগে। উপস্থিত ছিলেন রাজ্য ও জেলা নেতৃত্ব ভক্তরাম পান, সন্তোষ অধিকারী, পরেশ পাল, অশোক দলুই প্রমুখ।

মৌসুমী চক্রবর্তী জানিয়েছেন, সন্তোষ প্রামাণিকের দ্বিতীয় মৃত্যু বার্ষিকীতে বাবা ছেলে রক্তদান করলেন তাঁদের বাড়িতেই। প্রথম বছর অনেক মানুষদের সাথে নিয়ে রক্তদান কর্মসূচি করেন সমীর প্রামাণিক ও নাতি সৌহার্দ্য প্রামাণিক । কিন্তু এবছর কোভিড সমস্যার কারণে লোকজনকে আমন্ত্রণ করা হয় নি।রক্ত দিয়েছেন ছেলে সমীর প্রামাণিক ও নাতি সৌহার্দ্য প্রামাণিক ।

তপোলগ্না চক্রবর্তী জানান আজকে ৯ ই সেপ্টেম্বর হাওড়া হাট খোলার দাবীতে, দ্রব‍্যমূল‍্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে ও গতকাল বাকরায রক্তদান শিবিরে তৃনমূলি সন্ত্রাসের প্রতিবাদে সাঁকরাইলের প্রতিটি স্থানে প্রচার মাইক নিয়ে প্রচার ও পথসভা অনুষ্টিত হয়।সিপিআইএম সাঁকরাইল উত্তর এরিয়া কমিটির উদ্যোগে।


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।