জেলা

হাওড়ার টুকিটাকি—-


-চিন্তন নিউজ-৭ই সেপ্টেম্বর:,২০২০:শেখ জিশান-এর রিপোর্ট – এবার প্রতিরোধের পালা, এই শ্লোগানকে পাথেয় করে আজকে ডোমজুড় পুর এরিয়া কমিটির কাটলিয়া শাখায় এক বৈঠকি সভার আয়োজন করা হয়। এক ঝাঁক তরতাজা যুবকদের উপস্থিতিতে সভাটি যেন প্রতিরোধের মঞ্চে পরিণত হয়। এলাকাটি দর্জি শিল্পের উপর নির্ভরশীল। ‘করোনা’ পরিস্থিতির পর এলাকার মানুষ দুর্বিষহ অর্থনৈতিক সংকটের মধ্যে দিন কাটাচ্ছে। ট্রেন বন্ধ তাই ভিন্ন রাজ্য থেকে কোন ক্রেতা আসছে না। রাজ্য সরকারের খামখেয়ালিপনার জন্য হাওড়া মঙ্গলা হাট বন্ধ। এলাকায় ছোট ছোট শিল্প কারখানায় যুক্ত থাকা শ্রমিকরাও আজ কাজ হারিয়ে বেকার। ভিন্ন রাজ্য থেকেও কাজ হারানোর শ্রমিকরা গ্রামে ফিরে এসেছে। এরকম সংকটের মুখে রাজ্য সরকার ছাঁটাই করেছে রেশনের খাদ্য সামগ্রী। আম্ফান ঝড়ের ক্ষতিগ্রস্তরা এখনও কোন সাহায্য পায়নি।এদিকে তৃণমূলের নেতারা বিভিন্ন অজুহাতে মানুষের কাছ থেকে টাকা আদায় করে চলেছে।পাশের গ্রাম বাঁকড়ায় রক্তদান শিবিরে তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতিকারীদের হামলা তৃণমূলীদের স্বরূপ মানুষকে চিনিয়েছে। তাই মানুষকে আরো সঙ্গবদ্ধ হতে হবে মানুষকে সাথে নিয়েই এই স্বৈরাচারী শাসন ব্যবস্থার অবসান ঘটানোর জন্য আন্দোলন সংগ্রামে ঝাঁপিয়ে পড়ার আহ্বান জানান কমরেড শেখ জাহাঙ্গীর।উপস্থিত ছিলেন ডোমজুড় পূর্ব এরিয়া কমিটির অন্যতম সদস্য কমরেড অশোক পাল।প্রতিরোধ ও সংগ্রামে ঝাঁপিয়ে পড়ার শপথ নিয়ে সভাটি শেষ হয়।

সংবাদদাতা—-লাল্টু ঘোষ:- সিটু হাওড়া জেলা কমিটির উদ্যোগে আয়োজিত স্মরণসভায় শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করা হল দেবী পাঠকের দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবন। মৃত্যুর দিন পর্যন্ত তিনি ছিলেন সিটু হাওড়া জেলার সভাপতি, কেন্দ্রীয় কাউন্সিল সদস্য এবং রাজ্য ওয়ার্কিং কমিটির সদস্য। মার্কসবাদের প্রতি তাঁর অপরিসীম আস্থা তাঁর রাজনৈতিক ও ব্যক্তিগত জীবনে প্রভাব ফেলে। অকৃতদার মানুষটি গভীর নিষ্ঠার সঙ্গে পশ্চিম হাওড়ায় সিপিআই(এম) পার্টি গড়ে তোলার কাজে মনোনিবেশ করেন। একসময় পার্টি হাওড়া জেলা সম্পাদকমন্ডলীর সদস্য ছিলেন, বর্তমানে শারীরিক কারণে জেলা কমিটির আমন্ত্রিত সদস্য ছিলেন। করোনা মহামারীর সময়েও শ্রমিকদের সুবিধা অসুবিধার দিকে তীক্ষ্ণ দৃষ্টি ছিল, ত্রাণের কাজে সাহায্য করেন, এলাকাবাসীর যে কোনো প্রয়োজনে ভরসার আশ্রয়স্থল ছিলেন দেবী পাঠক। তাঁর মৃত্যুর সঙ্গে সঙ্গে যেন শ্রমিক তথা গণ আন্দোলনের একটা যুগের সমাপ্তি ঘটলো। স্মৃতিচারণ করেন শ্রমিক আন্দোলনের নেতৃত্ব দীপক দাশগুপ্ত সহ অন্যান্য নেতৃত্ব।

সংবাদদাতা-সরোজ দাস:- গণতান্ত্রিক যুব ফেডারেশনের কর্মীরা এলাকাবাসীর স্বার্থে সর্বত্র পথে বিভিন্ন সামাজিক কর্মসূচির মাধ্যমে। আজ যুব ফেডারেশন বালি-বেলুড় আঞ্চলিক কমিটির কর্মীরা বালি বাদামতলা মসজিদপাড়া এবং বেলুড়ের কিছু এলাকায় স্যানিটাইজেশনের কাজ করলো।


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।