দেশ

বেসরকারি সংস্থার অবাধ প্রবেশ কয়লা থেকে মহাকাশ, প্রতিরক্ষা সব বিভাগে


কল্পনা গুপ্ত, চিন্তন নিউজ:১৭ই মে:– – বিশ্বের দরবারে উন্মুক্ত করা হলো কয়লা খনির দরজা। শনিবার কেন্দ্রীয় সরকারের অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামণ এই মর্মে ঘোষণা করেন।বেসরকারি বিনিয়োগ ক্ষেত্রে শুধু কয়লা খনিই নয় তার সাথে সাথে মহাকাশ সংক্রান্ত বিষয়েও বাড়লো বেসরকারি বিনিয়োগ।

কয়লাখনি, মহাকাশ গবেষণার সাথে প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রেও বিনিয়োগের পরিমাণ ৪৯ শতাংশ থেকে বেড়ে ৭৪শতাংশ হলো। এদিন অর্থমন্ত্রী সীতারামণ জানান, এখন থেকে কয়লা উত্তোলন করতে পারবে বেসরকারি সংস্থাও। শীঘ্রই প্রায় ৫০ টি কয়লার ব্লকের জন্য নিলাম ডাকা হবে। এছাড়াও কেন্দ্রীয় সরকার এই খাতে উন্নয়নের জন্য ৫০ হাজার কোটি টাকা খরচ করবে। পরবর্তী ক্ষেত্রে ধাপে ধাপে ৫০০টি কয়লা ব্লকের নিলাম করা হবে।

তিনি আরো জানান, দেশের আরো ছয়টি বিমানবন্দর বেসরকারি হাতে তুলে দেওয়া হবে। যদিও ইতিমধ্যে ১২টি বিমানবন্দর বেসরকারি হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে।

প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে বিনিয়োগ বেড়ে ৭৪শতাংশ হয়েছে এবং কিছু অস্ত্র বিদেশ থেকে আমদানি নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এছাড়াও অর্ডিন্যান্স ফ্যাক্টরি বোর্ডগুলিকে ক্রমেই কর্পোরেট রূপ দিয়ে শেয়ার বাজারে তালিকাভুক্ত করা হবে।

এছাড়াও বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থা স্যাটেলাইট পাঠানো ও মহাকাশ সংক্রান্ত কাজেও যোগ দিতে পারবে। ইসরোর পরিষেবা ব্যবহার করে স্পেস ট্রাভেল, মহাকাশ যাত্রার মতন গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলিতে বেসরকারি সংস্থার স্বচ্ছন্দ বিচরণ করতে পারার ছাড়পত্রের ব্যবস্থা করলো কেন্দ্রীয় সরকার। অর্থাৎ কর্পোরেট সংস্থাগুলির প্রভুত্বে চলবে ভারতের কায়িকশ্রম থেকে মেধার ব্যবহার যা পুনরায় ভারতকে এক পরাধীনতার অন্ধকারে নিমজ্জমানের প্রয়াস। একেই বোধহয় বলে আমোদিত মন কি বাত!


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।