জেলা

পূর্ব বর্ধমান জেলার খবর


চিন্তন নিউজ,৩০শে আগস্ট,২০২০:- কল্পনা গুপ্ত – ৩১ আগস্ট খাদ্য আন্দোলনের শহিদদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে আজ ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি (মার্কসবাদী) বর্ধমান শহর ২নং এরিয়া কমিটির উদ্যোগে এক রক্তদান শিবির আয়োজন করা হয়। এই শিবির উদ্বোধন করেন ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি (মার্কসবাদী) পূর্ব বর্ধমান জেলা কমিটির সম্পাদক কমরেড অচিন্ত্য মল্লিক। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন পার্টি কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য কমরেড আভাস রায়চৌধুরি, রাজ্য কমিটির সদস্য কমরেড অমল হালদার, পার্টির জেলা সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য কমরেড তাপস সরকার, কমরেড অপূর্ব চ্যাটার্জী ও কমরেড অরিন্দম কোঙার, শহর ২ এরিয়া কমিটির সম্পাদক কমরেড তরুণ রায় ও অন্যান্য নেতৃত্ব এবং কর্মীবৃন্দ। আজকের রক্তদান শিবিরে রক্তদাতাদের মধ্যে যে উৎসাহ পরিলক্ষিত হয় তা এককথায় অভূতপূর্ব।

সহযোগিতায় শহিদ শিবশংকর সেবা সমিতির “রশ্মি ব্লাড ব্যাঙ্ক”।
এরিয়া কমিটির সম্পাদক তরুণ রায় বলেন, ১৯৫৯ সালে খাদ্য আন্দোলনের শহীদ ও বর্তমান কালে যাঁরা গণ আন্দোলনে শহীদ হয়েছেন তাঁদের উদ্দেশ্যে এই রক্তদান শিবিরের আয়োজন। মার্চ মাসে অপরিকল্পিত লকডাউনের ফলে বহুমানুষ দুর্দশাগ্রস্ত হয়ে পড়ে। সেই সময়ে ২নং এরিয়া কমিটি প্রায় ১৬০০০ পরিবারকে খাদ্য, ওষুধ, লেখাপড়ার সামগ্রী ইত্যাদি দিয়ে স্থানীয় মানুষের পাশে থেকেছে। মানুষের কৃতজ্ঞতা ও আস্থা অর্জন করতে পেরেছে। এই অবস্থায় তাদের প্রয়োজনে
রক্তের ব্যবস্থা করার উদ্দেশে এই শিবির করা হয়েছে। আগামী কয়েকমাস পরে পুনরায় এই শিবির করার কথা জানান তিনি।

কল্পনা গুপ্ত আরও জানিয়েছেন, আজ ভোরে নিজ বাসভবন ভুঁড়ি পঞ্চায়েতের শ্যামসুন্দর পুরে প্রয়াত হলেন গলসী ২ এলাকার প্রবীণ কৃষকনেতা কমরেড শঙ্কর ব্যানার্জী।বয়স হয়েছিল ৮৮ বছর।তিনি ১৯৫৬ সালে পার্টি সদস্য পদ অর্জন করেন।তিনি ১৯৫৯ সালে খাদ্য আন্দোলন ও ১৯৬৭ ও ১৯৬৯ সালে জমির আন্দোলনে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করেন।১৯৭২ সালে কংগ্রেসী গুন্ডারা গ্রাম দখল করতে এলে তাঁর এবং সুবোধ ক্ষেত্রপাল, জীতেন পাকড়ে ও দিলীপ ঘোষের নেতৃত্বে তীব্র প্রতিরোধ আন্দোলন গড়ে উঠলে তারা পিছু হটে।পালাতে বাধ্য হয়। ১৯৭৩ সালে তাঁর নেতৃত্বে ঐ এলাকায় মজুরী আন্দোলন গড়ে উঠে।কমরেড শঙ্কর ব্যানার্জী পার্টির বুদবুদ গলসী জোনাল কমিটির প্রাক্তন সদস্য ও জেলা কৃষকসভার প্রাক্তন কাউনসিল সদস্য।তাঁর এক পুত্র ও এক কন্যা বর্তমান।
কমরেড শঙ্কর ব্যানার্জীর জীবনাবসানের খবর পেয়ে তাঁর বাসভবনে গিয়ে মরদেহ লাল পতাকা দেন জেলা কৃষক সভার সম্পাদক সৈয়দ হোসেন।পার্টির ভারপ্রাপ্ত এরিয়া সম্পাদক জাফর আলি সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ মরদেহে মাল্যদান করেন।তাঁর মৃত্যুতে গভীর শোকজ্ঞাপন করেছেন পার্টির পূর্ব বর্ধমান জেলা সম্পাদক অচিন্ত্য মল্লিক, জেলা বামফ্রন্টের আহ্বায়ক অমল হালদার, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মদন ঘোষ, আভাস রায় চৌধুরি, পার্টি নেতা গনেশ চৌধুরী, সাইদুল হক প্রমুখ।

আজ রেল হকারদের দাবির সমর্থনে কালনা রেল-স্টেশানে পথসভা। বক্তব্য রাখছেন কমরেড সঞ্জিত ব্যানার্জি।

৩০ আগস্ট,ডিওয়াইএফ‌আই মেমারি-১ পশ্চিম আঞ্চলিক কমিটির দলুইবাজার ইউনিট কমিটির উদ্যোগে আজ এলাকায় স‍্যানিটাইজেশন কর্মসূচি পালিত হলো।

সারা দেশ জুড়ে সপ্তাহব্যাপী প্রচার আন্দোলনের কর্মসুচী হিসাবে গুসকরা পূর্ব এরিয়া কমিটির কয়রাপুর হাটতলা, মুসলীম পাড়া, করুঞ্জী ও ভাদা গ্রামে পথসভা করা হয়েছে।

সংবাদদাতা-কৌশিক সরকার খন্ডঘোষ এলাকা থেকে জানাচ্ছেন – খণ্ডঘোষ এলাকায় ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি মার্কসবাদী-র ডাকে গৈতানপুর অঞ্চলে ১৬ দফা দাবীকে সামনে রেখে একটি মিছিল সংগঠিত করা হয় এবং পরবর্তীতে একটি বিক্ষোভ কর্মসূচী পালন করা হয়। গ্রামের সাধারন মানুষের মধ্যে মিছিলকে কেন্দ্র করে বেশ ভালো সাড়া পাওয়া যায়। উপস্থিত ছিলেন খণ্ডঘোষ ১ নং এরিয়া কমিটির সম্পাদক দেশবন্ধু হাজরা, জেলা কমিটির সদস্য বিনোদ ঘোষ এবং এস-এফ-আই জেলা কমিটির সম্পাদক অনির্বাণ রায়চৌধুরী।


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।