জেলা

পূর্ব বর্ধমান জেলার খবর



চিন্তন নিউজ: কল্পনা গুপ্ত : ২১ শে অক্টোবর – গলসী- ১নং এরিয়া কমিটির পারাজ -২ নং শাখার প্রবীণ পার্টি সদস্য দামাল ঘোষের স্মরণ সভা আজ বিকালে অনুষ্ঠিত হয় কোন্দাইপুর গ্রামে । ৭৬ বছর বয়েসে তিনি গত ২১/৭/২০-তারিখে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে প্রয়াত হন। দামাল ঘোষ ১৯৮৫ সালে পার্টি সদস্যপদ পেয়েছিলেন। দীর্ঘ চল্লিশ বছর তিনি শ্রেণী আন্দোলনের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন।তাঁর নিরলস সংগ্রাম, কর্মধারা, পার্টির প্রতি আনুগত্য চিরদিন জাগ্রত থাকবে । দামাল ঘোষের স্মৃতি ও সংগ্রামী জীবনকে শ্রদ্ধা জানিয়ে স্মৃতিচারণ করেন পার্টির রাজ্য কমিটির সদস্য সৈয়দ হোসেন, সি.পি.আই-এর পক্ষে জিতেন মণ্ডল, এরিয়া সম্পাদক কমল সরকার। শোকপ্রস্তাব পাঠ করেন নিতাই সাহা । সভায় সভাপতিত্ব করেন ভৈরব আঁকুড়ে।
রায়না-১ এরিয়া কমিটির নতু অঞ্চলের বোর গ্রামে কৃষক সভার উদ্যোগে মানিক অধিকারীর স্মরণ সভা হয়। এই সভার সভাপতিত্ব করেন এরিয়া কমিটির অন্যতম সদস্য সুনীল পোড়েল ও উপস্থিত ছিলেন এরিয়া কমিটির সদস্য কাশীনাথ বিশ্বাস এবং এই সভায় স্মৃতিচারণ করেন রায়না এরিয়া কমিটির সম্পাদক কসের আলী এবং পশ্চিমবঙ্গ প্রাদেশিক কৃষক সভার সম্পাদক অমল হালদার।
ভাতার ২ এরিয়া কমিটির কাশিপুর দুলেপাড়াই সান্ধ্য বৈঠক হয়।সান্ধ্য বৈঠকে পাড়ার মহিলা পুরুষরা অংশগ্রহণ করেন এবং আলোচনা করেন।উপস্থিত ছিলেন বামাচরণ ব্যানার্জী, রাস হাজরা, শিতাংশু ভট্টাচার্য, তারাপদ ঘোষ, সোমাই মুর্মু,কালুরাম টুডু আরো অনেকে।
নিখিলবঙ্গ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি-কালনা পূর্ব চক্রের ব্যবস্থাপনায় আজ কালনা শহরের ১২ নং ওয়ার্ডের স্টেশন সংলগ্ন কলাবাগান অঞ্চলে গরীব দুঃস্থ ছাত্র-ছাত্রীদের হাতে কিছু শিক্ষাসামগ্রী (বই,খাতা,পেন,বিস্কুট,লজেন্স ইত্যাদি) তুলে দেওয়া হলো।অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের জেলা ও জোনাল নেতৃত্ব যথাক্রমে রাধেশ্যাম দাস, নীরব খাঁ, সুজয় সাহা।অন্যান্য বিশিষ্ট ব্যক্তিদের মধ্যে অলোক রায়, নীল ব্যানার্জী, সঞ্জিত মুখার্জি, হারু ঘোষ, রীতিশ বিমল সরকার, অস্মিতা মুখার্জী, অজয় দাস, তমোঘ্ন চট্টোপাধ্যায়।

দুঃস্থ মানুষের পাশে বাপমন্থীরা-
বর্ধমান টিকরহাটে বামপন্থীরা দুঃস্থদের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছে। সি পি আই এম বর্ধমান শহর ১ এরিয়া কমিটির অন্তর্গত ২৫ নং ওয়ার্ডে টিকরহাট এলাকায় প্রায় শতাধিক মানুষকে এই দুর্গাপুজোয় বস্ত্র তুলে দেওয়া হয়। শাড়ি, ছোট ছোট ছেলে মেয়েদের জামা, প্যান্ট, স্বাস্থ্য সচেতনতার জন্য মাস্ক তুলে দেওয়া হয়। লকডাউনের প্রথম দিন থেকেই সারা রাজ্যের সাথে বর্ধমান শহরেও বামপন্থীরা শ্রমজীবী মানুষের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করেছে। কখনো চাল, ডাল, তেল , নুন দিয়ে। কখনো বা সব্জি দিয়ে। আবার কখনো পড়ুয়াদের শিক্ষা সরঞ্জাম দিয়ে। বামপন্থীরাই বিকল্প পথ দেখাতে পারে। আজ এই বস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সি পি আই (এম) নেতৃত্ব তাপস সরকার, কাজল রায়, দেবদুলাল ঠাকুর, প্রশান্ত দাসচৌধুরী, নব সাউ সহ অন্যান্য নেতৃত্ব। জামা কাপড় পেয়ে এলাকার মানুষ আনন্দিত ও হাসিমুখে বস্ত্রাদি গ্রহণ করেছে।


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।