জেলা

ফের বিতর্কে ধূপগুড়ি গ্রামীণ হাসপাতাল,


সঞ্জিত দে: ধূপগুড়ি: চিন্তন নিউজ:১৯শে সেপ্টেম্বর:- গত কয়েকদিন ধরে উত্তরবঙ্গের জেলাগুলিতে জ্বরে শিশু মৃত্যু চলছে সেই সময়েই এক শিশুকে ভুল করে খাওয়ার ওষুধের বদলে ইঞ্জেকশন দেওয়া হলো সরকারি হাসপাতালে। এবার ৩ বছরের শিশুকে সিরাপের জায়গায় দেওয়া হলো বয়স্ক রোগীর দুটি ইনজেকশন।তা নিয়ে উত্তেজনা ছড়াল ধূপগুড়ি হাসপাতালে।

ধূপগুড়ি ১৩ নম্বর ওয়ার্ড শ্রীনগর কলোনির বাসিন্দা পেশায় ব্যবসায়ী সাগর সূত্রধর তার তিন বছরের ছেলে প্রিয়াংস সূত্রধরকে রবিবার দুপুরে ধুপগুড়ি গ্রামীণ হাসপাতালে চিকিৎসা করাতে নিয়ে আসেন। পরিবার সূত্রে জানা যায়, প্রস্রাবের সমস্যা নিয়ে ডাক্তার দেখাতে এসেছিল সেই শিশুটি। সেই সময় ধূপগুড়ি গাদং এলাকার আরেক রোগী হাতে ব্যথা নিয়ে চিকিৎসা করাতে আসেন। সেই রোগীকে চিকিৎসক দুটি ইনজেকশন প্রেসক্রাইব করে বলে জানা যায়। পরপর দুটি রোগের প্রেসক্রিপশন গিয়ে পৌঁছয় কর্তব্যরত নার্সদের কাছে। আর এর পরেই ঘটে বিপত্তি। কারণ সেই সময় ইমারজেন্সিতে প্রচুর পরিমাণে বহিরাগত রোগীদের ভিড় ছিল সেই কারণে পরপর একাধিক প্রেস্ক্রিপশন সিস্টারের কাছে পৌঁছাতেই, ঘটে এই ঘটনা বলে স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে খবর। অভিযোগ শিশুটিকে ইঞ্জেকশন লেখা না হলেও অন্য ব্যাক্তির রোগের জন্য লেখা ইনজেকশন, পরপর দুটি ইনজেকশন দিয়ে দেওয়া হয় প্রস্রাবের সমস্যা নিয়ে আসা শিশু টিকে ।

ইনজেকশন দেওয়ার পর শিশুটি ঘামতে শুরু করে। অভিযোগ ভুল করে ইনজেকশন দেওয়ার পরেও হাসপাতালে তরফ থেকে শিশুটিকে পর্যবেক্ষণে রাখার কোনো ব্যবস্থা করা হয়নি। ঘটনায় ব্যাপক ক্ষোভ প্রকাশ করেন সেই শিশুটির পরিবারের সদস্যরা। রীতিমতো চিকিৎসককে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে তারা।

আরো গুরুতর অভিযোগ যে প্রেসক্রিপশন এর ভিত্তিতে ইনজেকশন দেওয়া হয়েছিল সেটিকেও সরিয়ে ফেলা হয়। অন্যদিকে ইঞ্জেকশন না পেয়ে কাতরাতে থাকে আরেক জন রোগী। পরবর্তীতে সেই রোগীকে দুটি ইনজেকশন দেওয়া হয়। রোগীর পরিবারের লোকেরা চিকিৎসকের কাছে এই গাফিলতির কারণ জানতে চাইলে উল্টে কর্তব্যরত সেই চিকিৎসক তর্ক শুরু করে দেন রোগীর পরিবারের সদস্যদের সাথে। যদিও বিষয়টি খতিয়ে দেখার কথা বলেছেন ধুপগুড়ি ব্লক স্বাস্থ্য আধিকারিক ডক্টর সুরজিৎ ঘোষ। স্বাস্থ্য কর্মীদের একাংশের বক্তব্য কর্তব্যরত নার্সের ভুল হয়নি চিকিৎসক নিজেই ভুল করেছেন। এই ঘটনা নিয়ে হাসপাতালে তুমুল উত্তেজনা দেখা দেয়।পরিবারের সদস্যরা শিশু টিকে বাড়ি ফিরিয়ে নিয়ে গেলেও জানিয়ে যান এই মারাত্মক ভুলের তদন্ত করে দোষী কে সাজা দেওয়া দরকার এবং শিশুর শারিরীক মানসিক অবস্থার অবনতি ঘটলে চিকিৎসার দায়ভার এবংঘটনার দায়িত্ব নিতে হবে স্বাস্থ্য দপ্তর কে।
ছবি ক্যাপশন শিশুর ভুল চিকিৎসা নিয়ে উত্তেজনা ধূপগুড়ি গ্রামীণ হাসপাতালে


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।