রাজ্য

লোকাল ট্রেন দেরীতে চলার দীর্ঘদিনের জমানো ক্ষোভে হাওড়া স্টেশনে ভাঙচুর নিত্যযাত্রীদের।


মাধবী ঘোষ:চিন্তন নিউজ:২৮শে অক্টোবর:–দীর্ঘদিন ধরে দেরিতে চলছে লোকাল ট্রেন, হাওড়া স্টেশনে ভাঙচুর নিত্যযাত্রীদের। নিয়মিত নির্ধারিত সময়ের থেকে অনেকটা দেরিতে অনেকটা দেরিতে চলছে ট্রেন। প্রতিবাদে হাওড়া স্টেশনে ভাঙচুর করলো যাত্রীরা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে গিয়ে আক্রান্ত হ’ল পুলিস কর্মীরা। ঘটনায় জড়িত সন্দেহে ইতিমধ্যে ৫ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বর্তমানে স্বাভাবিক হয়েছে পরিস্থিতি।

ঘটনার সূত্রপাত শনিবার ১১: ২৫ নাগাদ। সূত্রের খবর, এদিন প্রায় ৪৫ মিনিট দেরিতে হাওড়া স্টেশনে ঢোকে ডাউন আরামবাগ লোকাল। ওই ট্রেনটি আপে ব্যান্ডেল যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু ডাউনে ট্রেনটি দেরিতে ঢোকার কারণে আপ ব্যান্ডেল লোকাল টি ছাড়তে পারিনি। ফলে আপ ব্যান্ডেল লোকাল এর যাত্রীরাও দীর্ঘক্ষন ট্রেনের জন্য স্টেশনে অপেক্ষা করছিলেন। ডাউন ট্রেন টি হাওড়া ঢুকতেই আরামবাগ লোকাল আরামবাগ লোকাল‌ এর যাত্রীরা ট্রেনের গার্ড এর উপর চড়াও হয়। এরপরে ফেটে পড়েন আপ ট্রেনের যাত্রীরাও। এরপরে স্টেশন ম্যানেজার এর ওপরও চড়াও হয় যাত্রীরা।

স্টেশনের ম্যানেজার এর ঘরের টেবিল ও দরজায় ব্যাপক ভাঙচুর চালায় ক্ষুব্ধ যাত্রীরা। মুহূর্তে রণক্ষেত্র হয়ে ওঠে স্টেশন চত্বর। ব্যাহত হয় ট্রেন চলাচল। পরিস্থিতি আয়ত্তে আনতে ঘটনাস্থলে যায় আর পি এফ। বিক্ষোভের মাঝে পড়ে আহত হন পুলিশ কর্মীরা। এরপরে ঘটনাস্থল থেকে পাঁচ যাত্রীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এর প্রসঙ্গে পূর্ব রেলের সিপিআরও নিখিল চক্রবর্তী জানান শনিবার কিছুটা দেরিতে চলছিল। সেই কারণে যাত্রীরা ক্ষোভ প্রকাশ করেন। স্টেশন ম্যানেজার এর ঘরে ব্যাপক ভাঙচুর চালায় যাত্রীরা। তবে বর্তমানে স্বাভাবিক পরিস্থিতি এমনটাই জানিয়েছেন তিনি।

প্রসঙ্গত, শুধু এই দিন নয় যাত্রীদের অভিযোগ প্রায় তিন মাস ধরে এই ভাবে দেরিতে চলছে এই লাইনের ট্রেন। হলে স্বাভাবিকভাবেই দীর্ঘদিন ধরে ক্ষোভ বাড়ছিল যাত্রীদের মনে। এই দিন সেই ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ ঘটে। যদিও রেলের তরফে দাবি করা হয়েছে যে, তিন মাস নয়, এদিনই বেশ কিছুক্ষণ দেরিতে এসেছে ট্রেন। সেই কারণে এই ঘটনা।


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।