জেলা

গৌরীহাট থেকে পাদ্রীকুঠির রাস্তায় সিপিআইএম এর লাল পতাকায় ছেয়ে আছে, বছর দশেক পরে এই দৃশ্য


নিজস্ব সংবাদদাতা:জলপাইগুড়ি: চিন্তন নিউজ: ৫ই এপ্রিল:– রাজগঞ্জ বিধানসভা ক্ষেত্রের সন্ত্রাস কবলিত পাতকাটা গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার পাদ্রীকুঠি হাটে প্রচার সারলেন সংযুক্ত মোর্চার বামফ্রন্ট প্রার্থী রতন কুমার রায়। ২০১৩ সালের পর থেকে এই এলাকায় পার্টির কাজকর্ম করা যায়নি। ২০১৮ পঞ্চায়েত নির্বাচনে এই এলাকার প্রতিটি বুথে তৃণমূলের দুষ্কৃতীবাহিনী হাতে অস্ত্র নিয়ে প্রকাশ্যে দিনের আলোকে ঘুরে বেড়ায় । ২০১৯ এর লোকসভা নির্বাচনে রাজগঞ্জ বিধানসভার ক্ষেত্রে তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী পাতাকাটা, বারপেটিয়া, পাহাড়পুর গ্রামপঞ্চায়েত এলাকায় জয় যুক্ত হয় তৃণমূল।

আজ গৌরীহাট থেকে পাদ্রীকুঠির রাস্তায় পথে সিপিএম সহ অন্যান্য রাজনৈতিক দলের পতাকা থাকলে তৃণমূল কংগ্রেসের পতাকা খুঁজে পাওয়া যায়নি। পাদ্রীকুঠি হাটে আজকের হাটসভায় উপস্থিত ছিলেন পার্টির বর্ষিয়ান নেতৃত্ব প্রাক্তন সংসদ জিতেন দাস, সভায় সভাপতিত্ব করেন কৃষক আন্দোলনের নেতা সুভাষ দেব, বক্তব্য রাখেন যুবনেতা দীপশুভ্র সান্যাল, কৃষক আন্দোলনের নেতা আজম আলী আব্বাস, পার্টির এরিয়া কমিটির সম্পাদক তমাল চক্রবর্তী, রাজগঞ্জ বিধানসভা ক্ষেত্রের সংযুক্ত মোর্চার সিপিআইএম প্রার্থী রতন কুমার রায়। যুবনেতা দীপশুভ্র সান্যাল বলেন বিজেপির প্রার্থী শিলিগুড়িতে থাকেন, তৃণমূলের প্রার্থীকে এলাকার মানুষ চান না, রতন কুমার রায় ঘরের ছেলে প্রাক্তন যুব আন্দোলনের কর্মী, শ্রমিক কৃষক আন্দোলনের সাথে যুক্ত গরিব মানুষের দুঃখ-যন্ত্রণার কথা বিধানসভায় গিয়ে তুলে ধরার মতো এই এলাকার সমস্ত প্রার্থীদের মধ্যে রতন রায় যোগ্য প্রার্থী। তাই আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে সন্ত্রাসমুক্ত বাংলা গড়তে কমরেড রতন রায়কে বিপুল ভোটে জয়যুক্ত করুন।


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।