দেশ রাজ্য

মোদির শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে যাচ্ছেন না মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।


চিন্তন নিউজ:৩০শে মে,২০১৯:সূপর্ণা রায়: দিল্লি গেলেন না মমতা….. এই প্রথম না এর আগে যখন ২০১৪ সালে মোদী প্রথম ক্ষমতাতে এলেন সেবার ও যাননি।।ছিল চরম শত্রুতা।।।মুখ্যমন্ত্রী গতকাল বলেছিলেন শপথ গ্রহন অনুষ্ঠানে যাবেন, আজ বললেন যাবেন না , দিলেন এক অদ্ভুত যুক্তি ।। বিজেপি দাবি করেছে তৃনমুল তাদের ৫৪ জন কর্মী কে খুন করেছে।।। মুখ্যমন্ত্রী বলছেন তারা মারা গেছেন নিজেদের গোষ্ঠী কোন্দলে বা নানারকম পারিবারিক কারনে।।কিন্তু আজ মোদী র আমন্ত্রণ এ নিহতদের কয়েকজন যাচ্ছে দিল্লি তে এই শপথ গ্রহনে।তার মধ্যে আছে দারিভিটে খুন হওয়া ছাত্রটির বাবা।।ছেলে টি কি কারনে খুন হয়েছিল তা সবাই জানে। কিন্তু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অতীত ভুলে গেছেন।।।একবার বলেছিলেন সিপিআই এম নাকি তার ৫৫ হাজার কর্মী কে খুন করেছে।।। সিপিআইএম নেতা তন্ময় ভট্টাচার্য্য আজ বলেন বারবার প্রমান চেয়েছেন কিন্তু দিতে পারেন নি।।।কারণ মমতার স্বভাব মিথ্যা বলা।।।তাই চেঁচিয়েছেন কিন্তু প্রমান…. না …. আসলে উনি ভয় পেয়েছেন।।। নিজের ফাঁদে নিজে পড়েছেন।। অন্য দল থেকে ধান্দাবাজ লোক নিয়ে আড়ে বহরে বেড়েছে।।অন্য দল থেকে লোক ভাঙিয়ে নিয়ে গেছেন।।।। কত বড় ধান্দাবাজ আজ মনিরুল তার প্রমান।।। আজ নিজের দলের লোক চলে জাচ্ছে অন্য দলে।।।।উনি বলেন উনি ইতিহাসের ছাত্রী কিন্তু ইতিহাসটাই ভুলে গেলেন…..ভুলে গেলেন ইতিহাস ঘুরে ঘুরে আসে।।।আরও একটা বড় কারন উনি সত্যের মুখোমুখি হতে ভয় পাচ্ছেন।।ভোটের আগে অকথ্য ভাষা তে মোদি কে আক্রমন করেছেন চড় মারা থেকে শুরু করে কানধরে উঠবস পর্যন্ত করাবেন বলেছেন।।উনি বলেন ভদ্রতার কথা।।।ভদ্রতা শিখুন বামেদের কাছে।
২০১৪ সালে মোদি জেতার পর ত্রিপুরার মানিক সরকার ….. সাক্ষাৎ করেছিলেন মোদির সাথে রাজ্যের সুবিধার খাতিরে যেটা সবাই জানে।।আর মমতা মোদি র সাথে দেখা করেন প্রায় দশ মাস পর।শিখুন,… আপ নার অনেক শেখা বাকি আছে।শুধু চিৎকার করে গালিগালাজ করে বেশীদিন টেকা যায় না।কারণ ইতিহাস যা চিরকালিন সত্য।


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।