রাজ্য

জেলায় জেলায় বাম গণসংগঠনগুলির রক্তদান শিবির


চিন্তন নিউজ:- চৈতালি নন্দী:হুগলি: বলাগড়ে স্বেচ্ছায় রক্তদান শিবির।। অতিমারী ও আম্ফানের জোড়া আঘাতে সাধারণ মানুষের উপর নেমে এসেছে চূড়ান্ত বিপর্যয়।এই অবস্থায় বিভিন্ন ভাবে খাদসামগ্রী ,পড়াশোনার সরঞ্জাম থেকে ওষুধপত্র সব কিছু নিয়ে দূর্গত মানুষের পাশে রয়েছে একমাত্র বামপন্থীরাই। এই পরিস্থিতিতে মানুষ যখন বিভিন্ন সমস্যায় জেরবার, কোভিড১৯ ছাড়াও অন‍্য রোগীদের চিকিৎসা বাধাপ্রাপ্ত হচ্ছে বিভিন্ন ভাবে।

গরমকালে এসময় রক্তের চাহিদা থাকে তুঙ্গে। তখন রক্তদাতার ভূমিকায় এগিয়ে এলো বামপন্থী রাই। আজ বলাগড়ে হয়ে গেল স্বেচ্ছা- রক্তদান শিবির। সবরকমের ডিসটেন্সিং ও সুরক্ষা মূলক ব্যবস্থা নিয়েই এই শিবির করা হয়েছে। এই শিবির পরিচালনায় ছিল পশ্চিমবঙ্গ গনতান্ত্রিক লেখক শিল্পী সঙ্ঘের বলাগড় শাখা এবং বঙ্গীয় সাক্ষরতা প্রসার সমিতি। এর সঙ্গে ছিল এলাকার অগনণিত বামপন্থী ছাত্রযুব সম্প্রদায়। এই শিবিরে মোট ৪৯ জন মানুষ রক্তদান করেছেন। এই শিবিরে উপস্থিত ছিলেন গনতান্ত্রিক লেখক শিল্পী সঙ্ঘের সম্পাদক শ্রুতিনাথ প্রহরাজ এবং রাজ‍্য সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য স্বপন চট্টোপাধ্যায়।

সায়ঙ্ক মন্ডল, হুগলি:- তারকেশ্বর:-সন্ত্রাসের আঁতুড়ঘর তারকেশ্বরের চাঁপাডাঙা, ১১ র পর থেকে আক্রমণ আর আক্রমণ। এমন একটা দিন যায়নি যেদিন বামপন্থীরা চাঁপাডাঙায় আক্রান্ত হননি। কিন্তু সন্ত্রাস শেষ কথা বলে আজ রক্তদান ছিল তারকেশ্বর চাঁপাডাঙায়। শুরুর আগেই যুবক ডোনারদের ঢল আর প্রত্যেকটা দিকে যুবকর্মীদের সচেতন দৃষ্টি আর ত্রুটিহীন আপ্যায়ন। সন্ত্রাস জেতেনি, জিতে গেছে চাঁপাডাঙার মানুষ। ১০ বছর লাগাতার আক্রমণের পরও ডিওয়াইএফআই ও এস এ ফাই রক্তদান শিবির সফল। উপস্থিত ছিলেন ডিওয়াইএফআই হুগলি জেলা সম্পাদক ও রাজ্য কোষাধ্যক্ষ কমরেড অভিজিৎ অধিকারী, রাজ্য কমিটির সদস্য ও জেলা সভাপতি কমরেড মিন্টু বেরা, রাজ্য কমিটির সদস্য কমরেড মিঠুন চক্রবর্তী, জেলা জেলা কমিটির সদস্য প্রতিক চক্রবর্তী সম্পাদকমন্ডলীর সদস্য কমরেড সঞ্জয় ঘোষ, কমরেড বিশ্বজিত চৌধুরী প্রমুখ…

রাহুল চ্যাটার্জি: বীরভূম:–/-“এসো গড়ে তুলি রক্তের বন্ধন” – এই আহ্বান জানিয়ে ডিওয়াইএফ‌আই – এস‌এফ‌আই – এআইডিডব্লিউএ এর উদ্যোগে রামপুরহাটের মাঙ্গলিক অনুষ্ঠান ভবনে অনুষ্ঠিত হলো স্বেচ্ছায় রক্তদান শিবির। যৌবনের স্পর্ধার কাছে কোন কাজই অসম্ভব নয়, তাই মূলত কয়েকদিনের প্রস্তুতিতেই আজ মোট ৫০ জন রক্তদাতা রক্তদান করেন (৬ জন যুবতী/মহিলা ও ১জন বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন রক্তদাতা সহ)। এদিকে এই শিবিরে উপস্থিত ছিলেন প্রায় ৮০ জনের উপর রক্তদাতা কিন্তু রক্ত সংগ্রহের কিট পর্যাপ্ত সংখ্যায় না থাকার কারনে বাকিরা রক্তদান করতে পারেননি।তবে এই শিবির থেকে যে উল্লেখযোগ্য বিষয় সামনে এলো, তা হলো ছাত্রদের আবেগের সাথে যৌবনের উদ্যম। এই শিবিরে রক্তদান করে শুভ উদ্বোধন করেন এস‌এফ‌আই বীরভূম জেলার প্রাক্তন সম্পাদক তথা জেলার গন আন্দোলনের নেতা কম: সঞ্জীব বর্মন। উপস্থিত ছিলেন সিআইটিইউ-র বীরভূম জেলা সভাপতি মতিউর রহমান, ডিওয়াইএফ‌আই বীরভূম জেলা সভাপতি অমিতাভ সিং, এস‌এফ‌আই এর বীরভূম জেলা সভাপতি দেবাশীষ সরকার, পৌর কর্মচারী ইউনিয়নের বীরভূম জেলা সম্পাদক রবিন সিনহা, রামপুরহাট পৌরসভার ১৭ নং ওয়ার্ডের বিদায়ী কাউন্সিলর সঞ্জীব মল্লিক,রামপুরহাট কলেজের অধ্যাপক সুশোভন হাজরা, সুকৃত মন্ডল ও অন্যান্য নেতৃত্ব। মহিলা সমিতির বীরভূম জেলা সভানেত্রী কেনিজ রবিউল ফাতেমাও রক্তদান করেন এই শিবিরে।

আয়োজক সংগঠন গুলির পক্ষ থেকে ৫০ জন রক্তদাতা ও কিট না থাকার কারনে যারা রক্তদান করতে পারেন নি তাদের সক্কলকে অভিনন্দন জানান।

রামপুরহাট মেডিক্যাল কলেজ তথা হাসপাতালের ব্ল্যাড ব্যাংকে রক্ত সংকটের পরিস্থিতিতে এই রক্তদান শিবির কিছুটা হলেও সমস্যার সমাধানের কাজে লাগবে বলে জানান হাসপাতালের ব্লাড ব্যাংক কর্তৃপক্ষ। তারা এস‌এফ‌আই – ডিওয়াইএফ‌আই – এআইডিডব্লিউইউ নেতৃত্বকে এই রক্তদান শিবির আয়োজন করার জন্য ধন্যবাদ জানান।


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।