দেশ

আতঙ্কে বরহাটা গ্রাম – ভূমিহারা হ’তে চলেছে প্রায় চারশো পরিবার


রত্না দাস: চিন্তন নিউজ:৭ই আগস্ট:- প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি রামজন্মভূমিতে দাঁড়িয়ে একদিকে তার সুশাসন এবং ‘সবকা সাথ সবকা বিকাশ’ এর মন্ত্র আওড়াচ্ছেন তখনই অন্যদিকে অযোধ্যার ভূমি পুজন স্থল থেকে মাত্র তিন কিলোমিটার দূরের গ্রামবাসীদের মনে আতঙ্কের ছায়া।
উত্তরপ্রদেশের ফৈজাবাদ জেলার বরহাটা গ্রামেই গড়ে উঠবে রামচন্দ্রের বিশাল মূর্তি। যার প্রাথমিক কাজ ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গেছে। এই মূর্তি তৈরি করতে লাগবে ৮৬ একর জমি। প্রশাসনের পক্ষ থেকে সেই জমি অধিগ্রহণের নোটিশ গ্রামবাসীদের ধরানো হয়েছে। তারপর থেকেই তারা আশঙ্কায় দিন কাটাচ্ছে।

এই মানঝার বরহাটা গ্রামে ৪০০ টি পরিবারের বসবাস। অধিকাংশ গ্রামবাসীর প্রধান উপজীবিকা কৃষিকার্য । জমি গেলে কিভাবে তাদের দিন গুজরান হবে তা তারা জানে না। বুধবার যখন অযোধ্যার রাজকীয় ভূমি পূজার প্রস্তুতি চলছে তখন বরহাটায় এক গ্রামবাসীদের গলায় উদ্বেগের ছায়া। । রামজির বিশাল মূর্তি বসানোর জন্য যদি গ্রামবাসীদের উঠে যেতে বলা হয় তাহলে তারা কোথায় যাবেন? কিভাবে রুটি-রুজি জুটবে? বাপ ঠাকুরদার আমল থেকেই এই জমিতে চাষ বাস করে দিন চলে তাদের। এই জমি কেড়ে নিলে আমরা বাঁচবেন কি করে?’

উত্তরপ্রদেশের প্রশাসন সূত্রে তারা জানতে পেরেছে মূর্তি বসানোর জন্য এই গ্রামের ৪০০ টি পরিবারকে অন্যত্র উঠে যেতে বলা হতে পারে। ফলে তাদের আশংকা বাড়ছেই। অযোধ্যার মেয়র ঋষিকেশ উপাধ্যায় পুনর্বাসনের আশ্বাস দিলেও কবে তা পাওয়া যাবে তা কেউ জানে না।
সিপিআই এর তীব্র বিরোধিতা করে। গ্রামবাসীদের সমর্থনে সি পি আই এর সূর্যকান্ত পাণ্ডে বলেন, ‘শুধুমাত্র মূর্তি বসানোর জন্য ৫০০ বছরের পুরনো একটি গ্রামের মানুষজনের অধিকার জীবিকা কেড়ে নেওয়া হবে ?’ সিপিআইয়ের দাবি গ্রামবাসীদের স্বার্থে মূর্তি অন্যত্র বসানো হোক । কিন্তু তাতেও প্রশাসনের কোনো হেলদোল নেই।


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।